file ছবি। ঘটনার সঙ্গে যোগ নেই

নয়াদিল্লি: তাঁরা লড়ছেন। এক একজনকে ফিরিয়ে নিয়ে আসছেন সাক্ষাত মৃত্যুর হাত থেকে। নিজেদের জীবন বিপন্ন হলেও করোনা ভাইরাসের কবল থেকে তাঁদেরই হাতের জাদুতে রক্ষা পেয়েছেন বেশ কয়েক জন। কিন্তু এর বদলে তাঁরা কি পেলেন? হেনস্থা আর অপমান? নয়াদিল্লির সফদরজং হাসপাতালের দুই মহিলা চিকিৎসকের সঙ্গে এমনই ঘটনা ঘটেছে। এমনিতেই দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে চিকিৎসকদের অপমান করার ঘটনা সামনে আসছে। এবার সেই তালিকায় যোগ হল নয়াদিল্লি।

নয়াদিল্লির গৌতম নগর বাজারে প্রয়োজনীয় জিনিস কিনতে যাওয়ার সময় তাঁদের হেনস্থা করা হয়। কেন তারা বাড়ির বাইরে বেড়িয়েছেন, সেই প্রশ্নের উত্তর চাওয়ার মাধ্যমেই বচসা শুরু হয়। বুধবার বিকেলে সবজি কিনতে বেড়িয়েছিলেন ওই দুই মহিলা চিকিৎসক। করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসা করছেন, ফলে তাঁরা যে কোনও সময়ে আক্রান্ত হতে পারেন, এই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে স্থানীয়দের মধ্যে। বাজারের মুখেই এক ব্যক্তি তাঁদের প্রশ্ন করতে শুরু করেন।

কেন তাঁরা বাড়ির বাইরে এসেছেন, তাদের বাড়ির ভিতরেই থাকা উচিত ছিল, এমনই মন্তব্য ভেসে আসতে থাকে। বচসার মধ্যেই ওই দুই মহিলা চিকিৎসককে নিগ্রহ করেন অভিযুক্ত ব্যক্তি। তাঁর বক্তব্য, চিকিৎসকরা যত বাড়ির বাইরে বেরোবেন, করোনা ভাইরাসের ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা তত বেশি। মহিলা চিকিৎসকরা উত্তেজিত স্থানীয় জনতাকে বোঝানোর চেষ্টা করেও লাভ হয়নি। পরে বাধ্য হয়েই পুলিশের সাহায্য চান ওই চিকিৎসকরা। তবে পুলিশ আসার আগেই এলাকা ছেড়ে পালায় অভিযুক্ত। স্থানীয়রা ওই ব্যক্তির পরিচয় গোপন করতে চাইলেও, পুলিশ জানিয়েছে আক্রমণকারী ৪২ বছর বয়েসী এক ব্যক্তি।

পেশায় ইন্টিরিয়র ডিজাইনার। শেষ পাওয়া সূত্রে খবর, ওই ব্যক্তিকে বুধবার গভীর রাতে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদিকে, শেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৪৭ জন। মোট আক্রান্ত ৫৭৩৪ জনের মধ্যে বর্তমানে ৪৭৩ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। দেশে মোট মৃত্যু হয়েছে ১৬৬ জনের। অন্যদিকে দেশে এখনও গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়নি বলে জানিয়েছে ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন। রাজধানী দিল্লিতে সিল করে দেওয়া হয়েছে ২০ টি হটস্পট। পাশাপাশি বাধ্যতামূলক করা হয়েছে মাস্ক।

দিল্লির উপ-মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, রাজ্যের জনপ্রিয় সদর বাজারও সিল করে দেওয়া হবে। মার্কাজ মসজিদ, নিজামুদ্দিন বস্তি, পাতপরগঞ্জ, দিলশাদ গার্ডেন, মালব্য নগর -সহ ২০টি হটস্পট চিহ্নিত করা হয়েছে। খুব দ্রুত সেগুলো সিল করা হবে।বর্তমানে দিল্লিতে আক্রান্তের সংখ্যা জানা গিয়েছে ৫৭৬। এরমধ্যে ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। সেরে উঠেছেন ২১ জন। তবে আশার কথা হল, শেষ ২৪ ঘণ্টায় কোনও করোনা আক্রান্তের খোঁজ পাওয়া যায়নি।