ফাইল ছবি

কলকাতা: এবার রাজ্যে মে দিবস উদযাপন করছে না সিপিএম। রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এবার মে দিবসের দিন রাজ্যজুড়ে করোনা সচেতনতা দিবস উদযাপন করবে সিপিএম। পাশাপাশি ওই দিন করোনা রোগীদের পরিষেবা দেবার জন্য কয়েকটি হেল্পলাইন চালু করবে তারা। বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান ও সংযুক্ত মোর্চার নেতা বিমান বসু এই কথা জানিয়েছেন।

আরও খবর পড়ুন – এই প্রথম গণনার আগে ও নির্বাচনের ঠিক পরে প্রার্থী, এজেন্টদের নিয়ে জরুরি সভা মমতার

সিপিএম নেতা মহম্মদ সেলিম জানিয়েছেন, “করোনা পরিস্থিতিতে মানুষ বিপন্ন। বহু মানুষ হাসপাতালের বেড পাচ্ছেন না অক্সিজেন পাচ্ছেন না। তাই আমাদের আবেদন যে সমস্ত জায়গায় অক্সিজেন উৎপন্ন হয়, সেখানকার শ্রমিকরা টানা তিন শিফট কাজ করে অক্সিজেন উৎপন্ন করুন করোনা রোগীদের জন্য। সেটাই হবে সবচেয়ে বড় শ্রমিক দিবস উদযাপন।”

সিপিএম দলের জন্মলগ্ন থেকে দলের শ্রমিক সংগঠন ১ মে, মে দিবস পালন করে আসছে। এই দিন রাজ্যের কলকারখানায় শ্রমিকরা দিনটি উদাপন করেন। বিভিন্ন জায়গায় রক্তদান শিবির, বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হতো।

আরও খবর পড়ুন – বিশ্বের দরবারে আবার ঘুরে দাঁড়াবে আমেরিকা, কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশনে বার্তা জো- বিডেনের

কিন্তু এই বছর করোনা সংক্রমণের এতো তীব্রতা দেখে সিপিএম দলের পক্ষে মে দিবসের দিনটিকে করোনা সংক্রমণের বিরুদ্ধে সচেতনতা বৃদ্ধি দিবস হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে। এমন কী ২ মে, ভোট গণনার দিনও তারা রাজনৈতিক কাজের চাইতে করোনা সচেতনতা বৃদ্ধির জন্যই কাজ করবেন বলে সিপিএম সূত্রে জানা গেছে।

অন্য রাজ্যের মতোই এরাজ্যেও কোভিড সংক্রমণ ক্রমেই মাত্রা ছাড়াচ্ছে। বুধবারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার মারণ থাবায় আক্রান্ত হয়েছে ১৭ হাজার ২০৭ জন। যা অতীতের সমস্ত রেকর্ডকে ভেঙে দিয়েছে। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লক্ষ ৯৩ হাজার ৫৫২ জন।সবথেকে বেশি চিন্তা বাড়াচ্ছে কলকাতা। কলকাতার পরেই রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.