নয়াদিল্লি: ১৮ বছর আগে আজকের দিনে রক্তাক্ত হয়েছিল সংসদ। ২০০১ সালের আজকের দিনে সংসদে হামলা চালিয়েছিল সন্ত্রাসবাদীরা। শুক্রবার সেই হামলার ১৮ বছর পূরণ হল। আর তাই সংসদ ভবনের সামনে শহিদদের বীরত্ব এবং সাহসিকতাকে সম্মান জানালেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

১৮ বছর আগে পাকিস্তানি সন্ত্রাসবাদী সংগঠন লস্কর ই তৈবা এবং এবং জইস ই মহম্মদ যৌথ ভাবে হামলা চালিয়েছিল সংসদে। তাঁদের এই আক্রমনের ফলে কেঁপে গিয়েছিল ভারতবর্ষ। মারা গিয়েছিলেন বেশ কয়েকজন কর্মচারী। যদিও এই হামলার প্রধান মাথা আফজল গুরুকে পরে ফাসি দেওয়া হয়েছিল। আক্রমণের সময়ে সংসদের ভেতরে ছিলেন বেশ কয়েকজন মন্ত্রীও।

দিল্লি ছয়জন পুলিশকর্মী সহ বেশ কয়েকজন সাধারণ মানুষ এই হামলাতে মারা গিয়েছিলেন। তৈরি হয়েছিল এক আতঙ্কের পরিবেশ। তাই ইতিহাসে আজকের দিনটি কালো দিন হিসেবে গন্য করা হয়।

রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোমিন্দ সোশ্যাল মিডিয়াতে ২০০১ সালে মৃত শহীদদের প্রতি সম্মান জানিয়েছেন। আরও জানিয়েছেন, দেশের সম্মানার্থে যারা নিজেদের জীবন দান করেছেন তাঁদের প্রতি প্রনাম।

এছাড়াও সংসদের অধিকাংশ সদস্যই মৃত শহিদের প্রতি সম্মান জানিয়েছেন। এছাড়াও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী টুইট করে সম্মান জানিয়েছেন। এছাড়াও জানিয়েছেন ভারত কখনও এই বীর সন্তানদের বলিদানের কথা ভুলবে না।

এছাড়াও মনোজ তিওয়ারি টুইট করে জানিয়েছেন ” ভারত মায়ের বের সন্তান যারা ২০০১ সালে আজকের দিনে সংসদ হামলায় নিজেদের প্রাণ ত্যাগ করেছিলেন তাঁদের পসম্মান জানাই।

২০০১ সালে আজকের দিনে ৫ জন সন্ত্রাসবাদী সংসদে ঢুকে এক নারকীয় হত্যালীলা চালিয়েছিল। সেই সময়ে সংসদের ভেতরে ছিলেন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী সহ অনেকেই। রক্তে ভেসে গিয়েছিল ওই চত্বর। আর সেই ঘটনার ১২ বছর বাদে ৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৩ সালে ওই মামলার মূল অভিযুক্ত আফজল গুরুকে ফাসি দেওয়া হয়েছিল।