ফাইল ছবি৷

নয়াদিল্লি: পুলওয়ামা হামলার ২১ দিনের মধ্যে ১৮ জন জঙ্গিকে নিকেশ করেছে ভারতীয় সেনা৷ এদের মধ্যে আট জন পাক জঙ্গি৷ সোমবার সাংবাদিক সম্মেলন করে এই সাফল্যের কথা তুলে ধরেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল কেজেএস ধিঁলো

সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন, সেনাবাহিনীর লক্ষ্য কাশ্মীরে শান্তি ফিরিয়ে আনা৷ তবে কাশ্মীরের মাটি থেকে জইশকে উপরে ফেলতে বদ্ধপরিকর সেনা৷ জইশকে পুরোপুরি নির্মূল না করা অবধি অভিযান চলবে৷ এদিন ত্রালে জঙ্গি নিধন অভিযানে বড় সাফল্য পায় ভারতীয় সেনা৷ পুলওয়ামা হামলার অন্যতম চক্রী মুদাসির খানকে খতম করে জওয়ানরা৷ সেই খবর সাংবাদিক সম্মেলনে জানিয়ে লেফটেন্যান্ট জেনারেল বলেন, জইশ-ই-মহম্মদের সেকেন্ড-ইন-কমান্ড ছিল সে৷

এর আগে পুলওয়ামা হামলার আর এক মাথা কামরানকে খতম করে ভারতীয় সেনা৷ সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে মারা যায় সে৷ ৪০ জওয়ানের উপর হামলার মূল চক্রী ছিল এই দুই জঙ্গি৷ তাদের খতম করে পুলওয়ামার শহিদ জওয়ানদের মৃত্যুর বদলা নিল ভারতীয় সেনা৷ লেফটেন্যান্ট জেনারেল জানান, চলতি বছরে পাকিস্তান ৪৭৮ বার সংঘর্ষবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করেছে৷ এছাড়া ৭০ এর বেশি জঙ্গি খতম হয়েছে৷ পুলওয়ামার পর ১৮ জইশ জঙ্গি সেনা অভিযানে মারা যায়৷

রবিবার থেকে ত্রালে সেনা জঙ্গি গুলির লড়াই শুরু হয়৷ সোমবার সেনা এনকাউন্টারে খতম হয় তিন জঙ্গি৷ এরা সবাই পাক মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদের সদস্য৷ নিহত জঙ্গিদের মধ্যে রয়েছে পুলওয়ামা হামলার মাস্টার মাইন্ড মুদাসির আহমেদ খান৷

মুদাসিরের বাড়ি কাশ্মীরের অবন্তিপোড়ায়৷ মৃত্যুর পর তার পরিবারের তরফে ছেলের দেহ পাওয়ার আবেদন জানানো হয়েছে বলে সেনা সূত্রে খবর৷ নিহত তিন জঙ্গির ভেতর এক জন বিদেশি বলে জানা গিয়েছে৷ কে এই তৃতীয় জঙ্গি৷ আপাতত তার সন্ধানেই খোঁজখবর শুরু করেছে সেনাবাহিনী৷