পানাজি: করোনার জেরে লকডাউন। আর তাতেই এদেশে আটকে পড়েছিলেন স্পেনের ১৫০ জন নাগরিক। শনিবার রাতে তাঁরা উড়ে গেলেন নিজেদের দেশের দিকে।

সংবাদ সংস্থা এএনআই জানিয়েছে, একটি বিশেষ বিমানে তাঁদের নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। প্লেনে ওঠার আগে স্ক্রিনিং করে দেখা হয় তাঁরা করোনা আক্রান্ত কিনা, এরপরেই যেতে দেওয়া হয় স্পেনের নাগরিকদের। গোয়া থেকে ওই বিশেষ বিমান ১৫০ জনকে নিয়ে উড়ে যাচ্ছে মাদ্রিদের দিকে। সেখানে তাঁদের একপ্রস্থ স্ক্রিনিং করা হতে পারে।

ইতিমধ্যে করোনা ভাইরাসের জেরে মারণপুরীতে পরিণত হয়েছে স্পেন। ইতিমধ্যে সেখানে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১১ হাজার মানুষের। আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক লাখ ২৪ হাজার ৭৪৪ জনে।

এই পরিস্থিতিতে লকডাউন বাড়ানোর ঘোষণা করেছেন স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ। করোনা রুখতে ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত দেশে লকডাউন বাড়ানোর ঘোষণা করেছেন তিনি। উল্লেখ্য বিষয় হল, স্পেনে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৮০৯ জন কোভিড-১৯ এ প্রাণ হারিয়েছে।

আন্তর্জাতিক সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটার্স জানিয়েছে, নতুন করে স্পেনে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ৫ হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। তবে শুক্র ও শনিবার উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে মৃতের সংখ্যা।

বর্তমানে মারণ করোনা ভাইরাসে সবচেয়ে বেশি সংক্রমিত দেশ হিসেবে সবার ওপরে রয়েছে আমেরিকা। আর মৃত্যুর দিক দিয়ে ইতালি এগিয়ে রয়েছে। এর পরেই অবস্থান স্পেনের। এদিক থেকে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ট্রাম্পের দেশ। স্পেন সরকার করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে লকডাউনসহ বিভিন্ন ধরনের ব্যবস্থা নিলেও তা সফল হচ্ছে না। আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। প্রায় সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে স্পেনের স্বাস্থ্য পরিষেবা।