নয়াদিল্লি: পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরাতে অবশেষে হস্তক্ষেপ করল সুপ্রিম কোর্ট৷ তবে করতে দেশের সর্বোচ্চ আদালতে লেগে গেল দু’মাসের বেশি সময়৷ একটি জনস্বার্থ মামলার পরিপ্রেক্ষিতে শুক্রবার পরিশ্রমিকদের ১৫ দিনের মধ্যে বাড়ি ফেরানোর নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট৷

পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশার কথা মাথায় রেখে একটি স্বতঃপ্রণোদিত মামলার শুনানিতে এদিন কেন্দ্র ও রাজ্যগুলিকে এমনই নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত৷ অর্থাৎ আগামী ১৫ দিনের মধ্যে সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিককে ঘরে ফেরাতে হবে। এই সংক্রান্ত মামলায় আগামী ৯ জুন রায় দেবে সুপ্রিম কোর্ট৷

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রুখতে সারা দেশে ২৩ মার্চ থেকে লকডাউন ঘোষণা করে কেন্দ্র সরকার৷ পাঁচটি পর্যায়ে লকডাউন ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ ১ জুন থেকে দেশে পঞ্চম পর্যায়ের লকডাউন শুরু হলেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই নিময় শিথিল করা হয়েছে৷ কিন্তু দীর্ঘ আড়াই মাসেও সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিককে ঘরে ফেরানো যায়নি৷

পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরানোর ক্ষেত্রে ‘তু তু ম্যাঁয় ম্যাঁয়’ করেছে কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারগুলি৷ সরকার কোনও ব্যবস্থা না-করায় প্রথম দিকে বেশকিছু শ্রমিক পায়ে হেঁটে এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে বাড়ির উদ্যেশে প্রাণ হারিয়েছেন৷ রেললাইন হাঁটা লাগিয়েছিলেন বাড়ি ফেরার উদেশ্যে৷ কিন্তু রাতে রেললাইনে ঘুমে পড়ায় মালগাড়ীর চাকায় কাটা পড়ে মৃত্যু বেশ কিছু শ্রমিকের৷ কখনওবা শ্রমিকরা বেশি টাকা খরচ করে ট্রাক ভাড়া করে বাড়ি ফিরেছেন৷ এমনটা করতে গিয়ে দুর্ঘটনা প্রাণ হারিয়েছেন অনেক শ্রমিক৷ এর পর পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরাতে নড়েচড়ে বসে কেন্দ্র৷ কখনও বাসে আবার কখনও ট্রেনে বাড়ি ফেরানোর ব্যবস্থা করলেও তা যথৈবচ৷

পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশার কথা মাথায় রেখে এদিন সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতাকে বিচারপতি অশোক ভূষণ বলেন, ‘সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিককে বাড়ি ফেরাতে কেন্দ্র ও রাজ্যগুলিকে ১৫ দিন সময় দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য কর্মসংস্থান ও পুনর্বাসনের কী ব্যবস্থা রাজ্যগুলি নিচ্ছে, সে সম্পর্কে রেকর্ড রাখতে হবে। পরিযায়ীদের তালিকাও তৈরি করতে হবে৷’

আদালতে এদিন সলিসিটর জেনারেল জানান, ৩ জুন পর্যন্ত ৪,২০০টির বেশি শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে করে এক কোটি পরিযায়ী শ্রমিককে ঘরে ফেরানো হয়েছে। পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরাতে আর কত ট্রেন লাগবে সে ব্যাপারে রাজ্যগুলিতে জানাতে বলা হয়েছে৷

বিহার সরকারে প্রতিনিধি হিসেবে রঞ্জিত কুমার এদিন শীর্ষ আদালতে জানান, ‘রাজ্যে এখনও পর্যন্ত ২৮ লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিককে ফেরানা হয়েছে৷ বিহার সরকার তাদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করছে৷’

আদালত রাজস্থান সরকারের প্রতিনিধিকে জানায়, রাজ্যের এখনও কত পরিযায়ী শ্রমিক বাড়ি ফিরতে চায়, তার তালিকা তৈরি করতে৷ রাজস্থান সরকারের প্রতিনিধি মনীশ সিংভি জানান, ‘সংখ্যাটা খুব বেশি নয়৷ দয়া করে প্রত্যেককে বাড়ি ফেরানোর জন্য ১৫ দিন সময় দিন৷’

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প