ছবি- প্রতীকী

ভোপাল: ফের মধ্যপ্রদেশে গণধর্ষিতা নাবালিকা৷ এবার ছতরপুর জেলার বুন্ডেলখন্ডে৷ ১৪ বছরের এক নাবালিকাকে ঘুমের মধ্যে থেকে তুলে নিয়ে আত্মীয়ের বাড়ির ছাদে গণধর্ষণ করা হয়৷ এই ঘটনায় নাম জড়িয়েছে মেয়েটির এক আত্মীয়ের৷ অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে খাজুরাও থানার পুলিশ৷

ঘটনাটি শুক্রবারের হলেও শনিবার রাতে সামনে এসেছে৷ ওই দিন মেয়েটির পরিবার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন৷ ছতরপুর জেলা হাসপাতালে নাবালিকার মেডিক্যাল পরীক্ষাও হয়েছে৷ জানা গিয়েছে, গ্রামের তিন নাবালক মিলে ওই মেয়েটিকে গণধর্ষণ করে৷ অভিযুক্তদের মধ্যে একজন মেয়েটির আত্মীয়৷ তাকে ঘুমের ঘোরে বাড়ির ছাদে নিয়ে যাওয়া হয়৷ সেখানেই চলে অত্যাচার৷ ঘটনার সময় বাড়িতেই ছিল পুরো পরিবার৷ তারা বিন্দু বিসর্গ টের পাননি ব্যাপারটা৷

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে বাকি দুই অভিযুক্ত ওই গ্রামেরই বাসিন্দা৷ পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পকসো ও ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে৷ ওই নির্যাতিতা এখন স্থিতিশীল৷

মধ্যপ্রদেশে ক্রমশ বাড়ছে নাবালিকা নির্যাতনের ঘটনা৷ গত ১৫ দিনের মধ্যে পাঁচটি এমন ঘটনা সামনে এসেছে৷ কিছুদিন আগে সাগর জেলার তেজপুরে এক আদিবাসী নাবালিকাকে চার জন মিলে গণধর্ষণ করে৷ ২৮ জুন জব্বলপুরে তিন যুবকের লালসার শিকার হতে হয় ১৫ বছরের মেয়েকে৷ ২৬ জুন মান্দসোরে আট বছরের মেয়েকে স্কুল থেকে ফেরার পথে গণধর্ষণ করে দুই যুবক৷ এই ঘটনা শোরগোল ফেলে দেয় দেশ জুড়ে৷

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও