ইসলামাবাদ: বিষ লাড্ডু খেয়ে পাকিস্তানের পঞ্জাব প্রদেশের লায়া শহরে মৃত্যু হল ১৪ জনের। হাসপাতাল সূত্রে খবর, শুক্রবার ছয়জনের মৃত্যু হয়েছিল এই বিষ লাড্ডু খেয়ে। আজ মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয় ১৪। পুলিশ জানিয়েছে যে, বুধবার দিন ৩৪ জন ব্যক্তিকে লায়ার দুটি স্থানীয় হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল। কিন্তু তাদের মধ্যে ২০ জনের অবস্থার আরও অবনতি ওই হাসপাতাল থেকে অন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়। বাকি চিকিৎসাধীন রোগীদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে। এক্সিকিউটিভ ডিস্ট্রিক্ট অফিসার আমির আবদুল্লাহ জানিয়েছেন যে, যে নির্দিষ্ট দোকান থেকে এই মিষ্টিগুলো কেনা হয়েছিল প্রশাসন তা ইতোমধ্যেই বন্ধ করে দিয়েছে৷ এবং, বাদবাকি মিষ্টি লাহোরে পরীক্ষা করানোর জন্য পাঠানো হয়েছে। পুলিশ ওই দোকানের মালিক খালিদ মেহমুদ ও তারিক মেহমুদকে গ্রেফতার করেছে বলেও জানা গিয়েছে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।