বেজিং: চিন এমন এমন একটি দেশ যেখানে বিশ্বের বৃহত্তম জনসংখ্যা যা কিনা ১৩৭ কোটি কাছাকাছি সেখানে অনেক সারনেম বা উপাধি থাকবে সে তো স্বাভাবিকই। আপনিও নিশ্চয়ই তাই মনে করছেন। কিন্তু ব্যাপারটা মোটেই তা নয়। আর কদিনের মধ্যে চিনের মোট জনসংখ্যা ১৪০ কোটির কাছাকাছি পৌঁছে যাচ্ছে, তবে সেখানে উপাধি আছে মাত্র ১০০ টি । পরিস্থিতি এমন যে বিভিন্ন ধরণের অসুবিধা দেখা দিয়েছে।

আপনি যখন চাইনিজ নাম শুনবেন তখন আপনার মনে হবে একই নাম যেন ঘুরে ফিরে আসছে। ওয়াং, লি, ঝাং, লিউ বা চেনের মত নাম আপনি বারবার শুনবেন। সিএনএন এর রিপোর্ট মোতাবেক, চিনে মাত্র চার-পাঁচটি উপাধি মোট জনসংখ্যার ৩০ শতাংশ জুড়ে রয়েছে।

আরও পড়ুন – BREAKING: শেষ আট মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন করোনা সংক্রমণ, স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছে দেশ

ভারত ও আমেরিকার চিনা মোকাবিলা

চিনা জনসুরক্ষা মন্ত্রণালয়ের নথি থেকে জানা গিয়েছে, চিনা জনসখ্যায় মোট ৬০০০ পদবি ব্যবহার করা হয়। তবে মোট জনসংখ্যার মধ্যে ৮৬ শতাংশ মানুষ মাত্র ১০০ টি উপাধি ব্যবহার করে। তবে এব্যাপারে ভারত ও আমেরিকা চিনের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে। ভারত জনসংখ্যায় চিনের চেয়ে সাম্ন্য পিছিয়ে রয়েছে, কিন্তু ভারতে কোটি কোটি উপাধি রয়েছে। লক্ষ লক্ষ উপাধি প্রচলিত রয়েছে। আমেরিকার দিকে যদি লক্ষ্য করা যায়, আমেরিকার জনসংখ্যা চিনের এক-চতুর্থাংশ। কিন্তু এখানেও লক্ষ লক্ষ উপাধি প্রচলিত আছে।

চিনের সবচেয়ে জনপ্রিয় ১০ টি উপাধি

চিনের সবচেয়ে জনপ্রিয় ১০ টি উপাধির মধ্যে রয়েছে ওয়াং, লি, ঝাং, লিউ, চেন, ইয়াং, হুয়াং, ঝাও, উউ, এবং ঝো।

আরও পড়ুন – প্রথা ভেঙে হোয়াইট হাউজে জিল বাইডেনকে স্বাগত জানালেন না মেলানিয়া

কী কী সমস্যা হতে পারে?

চিন নিজেকে পুরোপুরি ডিজিটালাইজ করেছে। অ্যাপয়েন্টমেন্ট থেকে ট্রেনের টিকিট সবই অনলাইনে টিকিট কেনা হয়। যদি আপনার নামটিতে বিরল অক্ষর বা উপাধি থাকে তবে এদের ডেটাবেসে এটি পাওয়া যাবে না। এ কারণে আপনার সমস্যা হতে পারে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।