কাবুল: সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে মৃত্যু হল ১৩ তালিবানের জঙ্গির৷ আফগানিস্তানের উত্তরে তিনটি প্রদেশে গত ২৪ ঘন্টায় সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে এই জঙ্গিরা নিহত হয়৷ সেনাবাহিনী এই খবরের সত্যতা স্বীকার করেছে৷
উত্তর কুন্দুজের কাছে খানাবাদ জেলায় কমপক্ষে ৭ জন তালিবানি জঙ্গি মারা গিয়েছে৷ আহত হয়েছে আরও ৪ জন৷ আফগান সেনাকে উদ্ধৃত করে স্থানীয় সংবাদপত্রগুলি জানিয়েছে উত্তরের সুজমা কোয়ালা জেলায় মারা গিয়েছে ১জন জঙ্গি৷ আহত হয়েছেন আরও দুজন৷

অন্যদিকে, পাঁচজন জঙ্গি খতম হয়েছে চাহার বোলাক জেলায়৷ আহত হয়েছেন তিন জন৷ উদ্ধার হয়েছে বেশ কিছু আগ্নেয়াস্ত্র, বিস্ফোরক৷ তবে এখনও তালিবানদের তরফ থেকে কোনও বিবৃতি দেওয়া হয়নি৷

এরআগে, এপ্রিলের শুরুতেই আফগানিস্তানের মাটিতে খতম হয় ৪ তালিবান জঙ্গি৷ তারা দলের সিনিয়র নেতা বলে জানা গিয়েছে৷ আফগান ইন্টেলিজেন্স ও ন্যাশনাল ডিরেক্টরেট অফ সিকিউরিটির (NDS) যৌথ প্রচেষ্টায় তাদের খতম করা হয় দেশের ননগারহার প্রদেশে৷

কিছুদিন আগে একটি সমীক্ষায় দেখা যায়, আফগানিস্তানের ১৪টি জেলা বা পুরো দেশের প্রায় চার শতাংশ পুরোপুরি তালিবান নিয়ন্ত্রণে। আরও ২৬৩ টি জেলায় (পুরো দেশের ৬৬ শতাংশ) তাদের সক্রিয় প্রকাশ্য উপস্থিতি রয়েছে৷ তবে আফগান সরকার বিবিসির এই রিপোর্টকে অতটা গুরুত্ব দেয়নি৷ সরকারের দাবি, দেশের বেশিরভাগ অঞ্চলেই তাদের দখলে৷

রিপোর্টে আরও বলা হয়, আফগানিস্তানে তালিবানকে পরাজিত করতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন জোট শত শত কোটি ডলার খরচ করেছে৷ কিন্তু বিবিসির এক সমীক্ষায় দেখা যায় দেশটির অন্তত ৭০ শতাংশ জায়গাতেই তালিবানরা প্রকাশ্যে তৎপর৷ গত কয়েক মাস ধরে আফগানিস্তানে সমীক্ষা চালান হয়৷ এতে দেখা যাচ্ছে ২০১৪ সালে বিদেশি সৈন্যরা চলে যাওয়ার সময় আফগানিস্তানের যতখানি জায়গা তালিবানের নিয়ন্ত্রণে ছিল, এখন তার চাইতে অনেক বেশি জায়গা তারা নিয়ন্ত্রণ করে৷