ভোপাল : সাতসকালে মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন অন্তত ১৩ জন। জখমের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে পুলিশ। মঙ্গলবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে, মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়র জেলার পুরানী ছাওয়ানি এলাকায়।

পুলিশ জানিয়েছেন, এদিন সকালে একটি বাস ও উল্টো দিক থেকে আসা একটি অটোর সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। ঘটনাস্থলেই মারা যান বাস ও অটোর মোট ১০ জন যাত্রী। মৃতদের মধ্যে অটো চালকও রয়েছেন।

জানা গিয়েছে, বাকি আহত যাত্রীদের উদ্ধার করে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে আরও ৩ জনকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। অন্যরা হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মর্মান্তিক এই ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছে মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান। এদিন সকালেই মৃতের পরিবারদের সমবেদনা জানিয়েছেন তিনি। এছাড়াও ক্ষতিপূরণ বাবদ মৃতদের পরিবারকে ৪ লক্ষ টাকা দেওয়া কথা ঘোষণা করেছেন এবং আহতদের ৫০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা জানিয়েছেন তিনি।

এই বিষয়ে গোয়ালিয়রের এসপি অমিত সাংহাই জানিয়েছেন, মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার সকাল ৭ টা নাগাদ। সেই সময় অঙ্গনওয়ারী কেন্দ্রে রান্না করে অটো করে বাড়ি ফিরছিলেন ১০ জন মহিলা কর্মী। সেই সময় পুরানী ছাওয়ানী এলাকায় একটি বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় অটোটির। ঘটনাস্থলেই অটোচালক সহ ১০ জন মহিলা মারা যান। বাকিদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে সেখানেই তাঁরা চিকিৎসাধীন।

প্রসঙ্গত , গত সপ্তাহেই মধ্যপ্রদেশের মন্ডলা জেলায় একটি মিনি-ট্রাক উল্টে গিয়ে ৫ জন নিহত ও ৪৬ জন আহত হয়েছেন।
জেলা পুলিশ সুপার যশপাল সিংহ পরিহর জানিয়েছেন, একটি বিয়ে বাড়ি থেকে ফেরার পথে চন্ডেরা থেকে দেব ডংরি গ্রামে আসার সময় পটলা গ্রামের কাছে ওই দুর্ঘটনাটি ঘটে। নিহতদের মধ্যে ২ জন মহিলা ও ৩ জন পুরুষ ছিলেন।

তবে এদিনের এই মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনায় মৃতদের পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্তে নেমেছে মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়র থানার পুলিশ

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.