থিম্পু: নেহরু জমানার নিয়ম ভেঙে গেল মোদীর সময়ে। দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে চলে আসা ভারতীয়দের জন্য বিনামূল্যে প্রবেশের নিয়মেই তালা দিল ভুটান সরকার।

এবার থেকে এই অপূর্ব সুন্দর দেশটিতে আসতে হলে দিতে হবে জন প্রতি ১২০০ টাকা। এমনই সিদ্ধান্তে সীলমোহর দিয়েছে রাজকীয় ভুটানি আইনসভা। সেই নিয়মই আগামী জুলাই মাস থেকে জারি করেছে দেশটির সরকার।

নিয়মে বলা হয়েছে, ৫ বছর বয়সী বিদেশি কাউকেই এই কর দিতে হবে না।আর ৬-১২ বছর পর্যন্ত বয়সীদের দিতে হবে মাথাপিছু ৫০০ টাকা।

ভারতীয়দের পাশাপাশি এই নিয়ম বলবত হচ্ছে বাংলাদেশি ও মালদ্বীপের নাগরিকদের জন্য।

১৯৪৯ সালে ভুটান-ভারত বন্ধুত্বের চুক্তি অনুসারে ভারতীয়রা বিনা প্রবেশকর দিয়েই ভুটানে ঢুকতেন। আগামী জুলাই মাস থেকে সেই নিম পাল্টে যাচ্ছে।

তবে ইউরোপীয়, আমেরিকান, জাপানি, সহ বিভিন্ন দেশের নাগরিকদের দিতে হতো জনপ্রতি ২৫০ ডলার। সেটি একইরকম থাকছে। এই পরিমান মার্কিন ডলারের বর্তমান মূল্য ১৭০০০ ভারতীয় টাকার বেশি।

ভুটান সরকার প্রথমে জানান, প্রত্যেক বিদেশি নাগরিকের জন্য ধার্য করা হবে ২৫০ মার্কিন ডলার প্রবেশ কর। বলা হয়, ২০২০ সালেই এটি কার্যকরী হবে। সেই ঘোষণার পরেই বিরাট ধাক্কার মুখে পড়ে বিভিন্ন দেশ ও ভারতের পর্যটন সংস্থাগুলি।

পশ্চিমবঙ্গ যেহেতু ভুটানের সীমান্তে তাই শিলিগুড়ির সব পর্যটন সংস্থা ও সীমান্তবর্তী আলিপুরদুয়ার জেলার টুর অপরেটররা চিন্তিত হয়ে পড়েন। ১৭০০০ টাকার বেশি জন প্রতি প্রবেশ কর দিয়ে ভুটানে ঢোকার পর্যটক মিলবেনা। শুরু হয় বুকিং বাতিল।

এই প্রেক্ষিতে সাম্পতিক ১২০০ টাকা প্রবেশ কর অনেকটাই কম। ফলে স্বস্তি পর্যটন সংস্থা গুলির। একই ছবি অসমেও। এই ১২০০ টাকা সাস্টেনেবল ডেভলপমেন্ট ফি বলে চিহ্নিত করেছে ভুটান সরকার। বলা হয়েছে পর্যটন উন্নয়নেই সেই টাকা খরচ হবে।