ঢাকা: যে সমস্ত বিদেশি নাগরিক বাংলাদেশে এসে থেকে গিয়েছে তাদের ফেরত পাঠাতে উদ্যোগী সরকার৷ কারণ কোনওভাবেই তাদের আর রাখা যাচ্ছে না৷ এই অবৈধ বিদেশি নাগরিকদের সংখ্যা ১১ হাজার৷ তাদের চিহ্নিত করা হয়েছে৷

বাংলাদেশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছে, ভিসার মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়ার পরও অবৈধভাবে বাংলাদেশে অবস্থান করা এই ১১ হাজার বিদেশিকে চিহ্নিত করা হয়েছে। চিহ্নিত এসব বিদেশি নাগরিকের বেশিরভাগই নাইজেরিয়া,তানজানিয়ার মতো আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের নাগরিক।

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী মোজাম্মেল হক জানিয়েছেন, এদেশে এসে পরবর্তীতে ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে অনেকে যায় না, থেকে যায়। তারা যেন থাকতে না পারে, সেজন্য কারা মেয়াদোত্তীর্ণ অবস্থায় আছে তাদের চিহ্নিত করা আমাদের যৌথ সভার সিদ্ধান্ত ছিল। সফলতার সাথে গোয়েন্দা সংস্থা তাদের চিহ্নিত করেছে।

মন্ত্রী বলেন, এখন সমস্যা দেখা যাচ্ছে যে ফেরত যাবে সেই টাকাও নেই ওদের কাছে। সেসব দেশের দূতাবাসও নেই আমাদের দেশে যে তাদের কাছে হস্তান্তর করব। এই অবৈধ অভিবাসীদের কারাগারে রাখলে সেখানেও তারা অপরাধের ঝামেলায় জড়াবে মন্তব্য করে মোজাম্মেল হক বলেন, সিদ্ধান্ত নিয়েছি, সরকারের কাছে অনুরোধ করব কিছু টাকা বরাদ্দ দেয়ার জন্য, যাতে অবৈধভাবে বসবাসকারী লোকগুলোকে তাদের দেশে ফেরত পাঠানো যায়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, বিভিন্ন দেশের নাগরিকরা ভিসা নিয়ে বাংলাদেশে এসে ব্যবসা করছে। অনেকে অপরাধের সঙ্গে জড়াচ্ছে। এদের অনেকে জেলে রয়েছে, যাদের সাজার মেয়াদও শেষ হয়েছে। এছাড়া ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর অবৈধভাবে এই দেশে অবস্থান করছে। সব মিলিয়ে প্রায় ১১ হাজার বিদেশি নাগরিক রয়েছে, যাদের আমরা নিজ নিজ দেশে পাঠিয়ে দেবো।

পাশাপাশি, তিনি বলেন, অনেক রোহিঙ্গা বাংলাদেশের পাসপোর্ট নিয়ে বিদেশে গেছে। সেসব পাসপোর্ট বাতিল করা হয়েছে, নতুন কেউ যেন পাসপোর্ট না পায় সে ব্যবস্থাও করা হয়েছে।