কলকাতা: শহর জুড়ে এখন এটিএম আতঙ্ক৷ তার মধ্যেই অনলাইনে খাবার অর্ডার দিয়ে প্রতারিত হল এক যুবক৷ অর্ডার দিয়েও খাবার না পেয়ে, অভিযোগ জানাতে গিয়েই প্রতারণার শিকার৷ তার ব্যংক অ্যাকাউন্ট থেকে খোয়া গিয়েছে ১০ হাজার টাকা৷ যাদবপুর থানায় অভিযোগ দায়ের৷

হরিদেবপুরের বাসিন্দা ঋষভ ঘোষের অভিযোগ,গত মঙ্গলবার অনলাইনে একটি ফুড ডেলিভারি অ্যাপে খাবার অর্ডার দেই৷ সঙ্গে সঙ্গে টাকাও কেটে নেওয়া হয়৷ কিন্তু দীর্ঘক্ষন অপেক্ষা করার পরও কোনও খাবার এসে পৌঁছায়নি৷ তখন ওই ফুড ডেলিভারির সংস্থার ফোন নম্বরে ফোন করি৷ সংস্থার পক্ষ থেকে আমাকে বলা হয়, অভিযোগ জানানোর জন্য একটি অ্যাপ ডাউনলোড করতে বলা হয়৷

ফুড ডেলিভারির সংস্থার ওই অ্যাপটি ডাউনলোড করতেই ঋষভ ঘোষের মোবাইল নম্বরে একটি লিঙ্ক পাঠানো হয়৷ বলা হয় ওই লিঙ্কে ক্লিক করলেই ক্যাশ ব্যাক পাওয়া যাবে৷ ফুড ডেলিভারির সংস্থার নির্দেশ মত, লিঙ্কে ক্লিক করার পরই তার ব্যংক অ্যাকাউন্ট থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে ১০ হাজার টাকা৷ পরপর দু’বারে ওই টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে৷

এই ঘটনার পরই তিনি ব্যাঙ্কে যোগাযোগ করেন৷ তখন জানতে পারেন, মুম্বই থেকে ওই টাকা তোলা হয়েছে৷ এরপর বুধবার সকালে পুরো বিষয়টি জানিয়ে যাদবপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন৷ অভিযোগ পেয়েই তদন্তে নেমেছে পুলিশ৷ পাশাপাশি লালবাজার সাইবার ক্রাইমেও অভিযোগ জানাবেন তিনি৷

এদিকে এটিএম জালিয়াতি নিয়ে প্রচুর অভিযোগ জমা পড়েছে শহরে৷ যাদবপুর, কড়েয়া, নেতাজি নগর এবং চারুমার্কেট এলাকার একাধিক ব্যাঙ্কগ্রাহক প্রতারণার অভিযোগ দায়ের করেছেন। লালবাজার সূত্রে খবর, এখনও পর্যন্ত শুধুমাত্র যাদবপুরেই অভিযোগ জমা পড়েছে ৪৪টি।

শনিবার রাত থেকে রবিবার পর্যন্ত দক্ষিণ কলকাতার যাদবপুর এলাকায় একের পর এক ব্যক্তি বুঝতে পারলেন, ডেবিট কার্ড হাতে থাকা সত্ত্বেও তাঁদের অ্যাকাউন্ট থেকে উধাও হয়ে যাচ্ছে টাকা৷ এটিএম প্রতারণার পাশাপাশি ফুড ডেলিভারি অ্যাপে খাবার অর্ডার দিয়েও প্রতারিত হচ্ছে শহরবাসী৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ