ফাইল ছবি৷

আমেদাবাদ: শুধু দেশেই নয়, বিদেশ থেকে ছুটে এসে প্রচার করছেন মোদী ভক্তরা। এমন উদাহরণও মিলেছে। কিছুদিন আগেই অস্ট্রেলিয়া ও আমেরিকা থেকে দুই প্রবাসী ভারতীয়ের আসার কথা জানা গিয়েছে। তবে গুজরাত জুড়ে মোদীর প্রচার চালাচ্ছেন অন্তত হাজার খানেক প্রবাসী ভারতীয়।

‘টাইমস অফ ইন্ডিয়া’র রিপোর্ট অনুযায়ী, গেরুয়া টুপি মাথায় ও গেরুয়া স্কার্ফ গলায় ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ’-এর বার্তা দিচ্ছেন ওই প্রবাসীরা। তাঁদের টি-শার্টে লেখা ‘ফির একবার মোদী সরকার।’ মোদীর বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়ে তাঁর গ্রামে গ্রামে ঘুরে মানুষের সঙ্গে কথা বলছেন।

গুজরাতের খেদা লোকসভা কেন্দ্রের ভুবালদিতে প্রচার করছেন নীরব পটেল নামে এক ব্যক্তি। তিনি শিকাগোতে একটি আইটি কোম্পানি চালান। ১০ দিনের জন্য গুজরাতে এসেছেন তিনি। তিনি বলেন, ‘আমরা দেখেছি যে ভারত কীভাবে মোদীর হাত ধরে এগিয়ে যাচ্ছে। মোদী একজন বিশ্ব নেতা। তাঁর নেতৃত্বেই দেশ আরও এগিয়ে যাক, এটাই চাই।’

কেউ এসেছেন ব্রিটেন থেকে, কেউ কানাডা কিংবা নিউজিল্যান্ড থেকে। আফ্রিকা থেকেও এসেছেন অনেকে। উগান্ডায় ম্যানুফ্যাকচারিং সংস্থা চালান নরেন মেহতা। তিনি জানিয়েছেন, মোদীর একাধিক উদ্যোগে তিনি অভীভূত। বিশেষ স্বচ্ছ ভারত অভিযান তাঁর অত্যন্ত ভালো লেগেছে।

৮২ বছরের ড. ইন্দ্রবদন পটেল শিকাগোতে ফিজিশিয়ান। তিনি স্ট্যাচু অফ ইউনিটির জন্য বিদেশ থেকে অর্থ সংগ্রহও করেছিলেন। তিনিও এবার হাজির গান্ধীনগরে। এসেছেন বস্টন থেকে আনার মেহতা। বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াওয়ের কথা প্রচার করবেন তিনি।

কয়েকদিন আগেই মোদীকে ভোট দিতে অস্ট্রেলিয়ার চাকরি ছেড়ে চলে আসেন এক ব্যক্তি। এরপর মোদীর হয়ে প্রচার করার জন্য আমেরিকা থেকে ছুটে এসেছেন আরও এক মহিলা। লোকসভার নির্বাচনের আগে মোদীকে সমর্থন করতেই এসেছেন ও প্রবাসী আইটি প্রফেশনাল মঞ্জরী গাংওয়ার।

উত্তরপ্রদেশের পাতিয়ালির বাসিন্দা মঞ্জরী। ২১ বছর আগে আমেরিকা গিয়েছেন তিনি। তিনি জানিয়েছেন, বিজেপি থেকে তাঁর কেন্দ্রে কোন নেতা লড়ছে, সে ব্যাপারে বিশেষ কিছুই জানেন না তিনি। শুধু মোদীকেই চেনেন। তাঁর জন্যই ভারতে ফিরেছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।