নয়াদিল্লি:এয়ার ইন্ডিয়ার ১০০ শতাংশ শেয়ার বেচার সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্র। সোমবার এই মর্মে একটি আগ্রহপত্রও প্রকাশ করেছে কেন্দ্র৷ ওই আগ্রহপত্র জমা দেওয়ার জন্য ১৭মার্চের বিকাল ৫টা পর্যন্ত সময়সীমা ধার্য করা হয়েছে।

কেন্দ্র যে আগ্রহপত্রটি প্রকাশ করেছে তাতে বলা হয়েছে, এয়ার ইন্ডিয়া ও এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের ১০০ শতাংশ এবং এয়ার ইন্ডিয়া স্যাটস-এর ৫০ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করা হবে। সেক্ষেত্রে যারা এই রাষ্ট্রায়ত্ত বিমান সংস্থাটিকে কিনবে, তাদের এয়ার ইন্ডিয়ার ২৩ হাজার ২৮৩ কোটি টাকার দেনার দায়ও নিতে হবে। যদিও কেন্দ্র এই মালিকানা দেশিয় কোনও সংস্থার হাতেই ছাড়তে চাইছে৷

দেনায় জর্জরিত রাষ্ট্রায়ত্ত এয়ার ইন্ডিয়াকে বেচার চিন্তাভাবনা নতুন নয়, অনেক দিন ধরেই চলছে। দুবছর আগে ২০১৮-তে এয়ার ইন্ডিয়ার ৭৬ শতাংশ শেয়ার বেচতে চেয়েছিল কেন্দ্র যার জন্য কেন্দ্র তখন আগ্রহপত্র ছেড়েছিল। তবে আগ্রহপত্র জমা দেওয়ার সমসয়সীমা বার বার বাড়িয়েও কেনার লোক পাওয়া যায়নি। এমন অবস্থার কারণ খুঁজতে উপদেষ্টা সংস্থা নিয়োগ করা হয়েছিল। সেই রিপোর্টে বলা হয়, সরকারের হাতে ২৪ শতাংশ মালিকানার রাখার বিষয়টি নিয়ে লগ্নিকারীদের মনে সংশয় দেখা দিচ্ছিল। শুধু তাই নয়, যে সংস্থা এয়ার ইন্ডিয়ার মালিকানা নেবে তাকে এই সংস্থার দেনার দায়ও নিতে হবে বলা হয়েছিল। যা দেখে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে ফলে বহু চেষ্টা সত্ত্বেও মুখ থুবড়ে পড়ে কেন্দ্রের বিলগ্নিকরণের পরিকল্পনা।

গতএক দশকেরও বেশি সময়ে এই রাষ্ট্রায়ত্ত বিমান সংস্থাটি লাভের মুখ দেখেনি। ফলে ঋণের ভারে জর্জরিত এবং ধুঁকতে থাকা এই বিমান সংস্থাটিকে বাঁচাতে সরকারকে অর্থসাহায্য করতে হয়েছে। তবুও ঘুরে দাঁড় করানো যায়নি ৷ ফলে শেষমেশ সরকার এই রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাটির অধিকাংশ শেয়ার বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল৷ কিন্তু তাতেও ইতিবাচক সাড়া না মেলায় এবার এয়ার ইন্ডিয়ার পুরো মালিকানা বেচার সিদ্ধান্ত নিল সরকার।