নয়াদিল্লি: ২০২০-এর পূর্ণাঙ্গ বাজেটে বেশ কয়েকটি চমকের কথা ঘোষণা করলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। শনিবার তিনি বাজেট ঘোষণায় জানালেন, ‘উড়ান’ (উড়ে দেশ কা আম নাগরিক) স্কিমের আঁওতায় ২০২৫ এর মধ্যে দেশজুড়ে তৈরি করা হবে ১০০ টি এয়ারপোর্ট।

সম্প্রতি উড়ান স্কিমের আঁওতায় আকাশ যাত্রায় নতুন মাত্রার কথা ঘোষণা করেছিল মোদী সরকার। এই স্কিমের মূল লক্ষ্যই হল বিভিন্ন প্রত্যন্ত ও আঞ্চলিক এলাকায় যোগাযোগ বাড়ানো। এর মধ্যে থাকছে লাদাখ, জম্মু-কাশ্মীরের মতো রাজ্য ও অন্যান্য পাহাড়ি রাজ্যগুলো। এই উড়ানের টিকিটের ক্ষেত্রেও বিগত ৩ বছর ধরে ভর্তুকি দেয় কেন্দ্রীয় সরকার।

শুধু যে বিমান বন্দর তৈরি হবে তাই নয়। বিভিন্ন জাতীয় সড়কের ৬০০০ কিমি সম্প্রসারণের কথাও ঘোষণা করা হয়েছে এবারের বাজেটে। নির্মলা দেবী তাঁর বাজেট ভাষণে জানান, পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ মডেলে দেশে আরও ১,১৫০ টি ট্রেন তৈরি করা হবে। পাশাপাশি বলা হয়েছে, তেজসের মতো দ্রুতগতির ট্রেন চলবে মুম্বই-আহমেদাবাদে, বেঙ্গালুরু-চেন্নাই রুটে। নতুন ট্রেন ঘোষণা হয়েছে অসমের জন্যও। কৃষকদের জন্যও ট্রেনের ঘোষণা করা হয়েছে বাজেটে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ঘোষণা করেন, রেলের জন্য নেওয়া জমিতেই তৈরি হবে রেলের যাবতীয় প্রকল্প।

শনিবার দ্বিতীয় মোদী সরকারের দ্বিতীয় বাজেট পেশ করতে গিয়ে শুরুতেই প্রয়াত অর্থমন্ত্রীকে শ্রদ্ধা জানান নির্মলা সীতারমন। অন্যদিকে কৃষকদের কথা মাথায় রেখে সোলার পাম্প সেট করার জন্য ২০ লক্ষ কৃষককে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে এবারের বাজেটে।

পাশাপাশি এই বাজেটে শিক্ষাখাতে ৯৯ হাজার ৩০০ কোটি টাকা বরাদ্দের পাশাপাশি স্বচ্ছ ভারতের যোজনায় ১২ হাজার ৩০০ কোটি, প্রধানমন্ত্রী জল জীবন মিশনে ৩.৬ কোটি ও প্রধানমন্ত্রী জন আরোগ্য যোজনাতে ৬৯ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।