সুরাট: ফের একবার লজ্জায় মুখ ঢাকল গুজরাট! ভূজের পর আবারও এক লজ্জাজনক কাণ্ডে খবরের শিরোনামে মোদীর রাজ্য।এবার ঘটনাস্থল সুরাট। সেখানে রাজ্য সরকারের একটি হাসপাতালে সুরাট মিউনিসিপ্যাল কর্পারেশনের প্রায় ১০০ মহিলা ট্রেনি কর্মচারীকে মেডিক্যাল চেক-আপের নামে নগ্ন করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

ট্রেনি মহিলাদের অভিযোগ, তাদেরকে একটি ঘরে ঢুকিয়ে মেডিক্যাল টেস্টের নামে পোশাক খুলতে বাধ্য করা হয়। এমনকি ঘরের দরজাও ঠিকমতো বন্ধ ছিল না বলে পুলিশের কাছে দাবি করেছেন এক সিনিয়র মহিলা কর্মচারী।

পাশাপাশি উঠে এসেছে আরও এক বিস্ফোরক অভিযোগ। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, মেডিক্যাল চেক-আপের নামে নানান একান্ত ব্যক্তিগত প্রশ্নও করেন চিকিৎসকেরা। অভিযোগ, অবিবাহিত মহিলাদের প্রেগন্যান্সি নিয়েও প্রশ্ন করেন চিকিৎসকেরা। এমনকি তাঁরা কখনও প্রেগন্যান্ট হয়েছে কিনা এপ্রশ্নও করা হয় বলে অভিযোগ। বেশ কিছু নির্যাতিতা দাবি করেছেন, চিকিৎসকেরা তাঁদের সঙ্গে অত্যন্ত খারাপ ভাবেও কথা বলেছে। তবে চিকিৎসকদের তরফে দাবি করা হয়েছে, গাইডলাইন অনুসারেই এই শারীরিক পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছিল।

এর আগে প্রকাশ্যে এসেছিল প্রায় একই ধরনের ঘটনা। গুজরাটের ভূজে কলেজ হস্টেলে কারও পিরিয়ড চলছে কিনা তা দেখতে পোশাক খুলে পরীক্ষা করা হয় মেয়েদের। সেই ঘটনায় কলেজের প্রিন্সিপালকে আটকও করেছিল পুলিশ।ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে দেশজুড়ে ছিঃ ছিঃ পড়ে গিয়েছিল । এমনকি এই ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়।

কিন্তু এত সব কিছুর পরেও আদপে অবস্থার যে খুব একটা বদল হয়নি, এদিনের ঘটনা যেন সেই প্রমাণই দিল গুজরাটের সুরাট।