বাকু ও ইয়েরভেন:  সামরিক শক্তির বিচারে আজারবাইজানের ক্ষমতা বেশি। কিন্তু আর্মেনিয়ার প্রবল হামলা চলছে।

বাকু ও ইয়েরভেন: সেনা শক্তির বিচারে আর্মেনিয়ার থেকে সাঁইত্রিশ ধাপ এগিয়ে আজারবাইজান। তবে আর্মেনিয়ার প্রাথমিক হামলায় তাদের ক্ষতি হয়েছে। আলজাজিরার খবর, দুই দেশের বিতর্কিত সীমান্ত এলাকায় সংঘর্ষ চলছে। নিহতের সংখ্যা শতাধিক।

বিবিসি জানাচ্ছে, আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান সীমান্তের বিতর্কিত নাগোর্নো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে যুদ্ধ চলছে। এই এলাকায় আগেও দুই দেশ সংঘর্ষে জড়িত। তবে গত ৪৮ ঘণ্টার পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। বিবিসির খবর, আজারবাইজানের একটি হেলিকপ্টার গুলি করে ফেলে দিয়েছে আর্মেনিয়ার বাহিনি।

বিশ্বে সামরিক শক্তির তালিকা প্রকাশ করে গ্লোবাল ফায়ার পাওয়ার। তাদের হিসেহে আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজানের সামরিক পরিসংখ্যান এসেছে।

গ্লোবাল ফায়ার পাওয়ারের ২০২০ সালের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সামরিক শক্তিতে ১৩৮টি দেশের মধ্যে আজারবাইজানের অবস্থান ৬৪তম। আর্মেনিয়ার অবস্থান ১১১ তম।

সংঘর্ষ শুরু থেকেই আর্মেনিয়ার হামলা প্রবলতর হয়। প্রতি আক্রমণে যায় আজারবাইজান। সোমবার আর্মেনিয়া দাবি করেছে, তাদের অন্তত ৮৪ জন সেনা সংঘর্ষে মৃত। আজারবাইজানের দাবি বহু অসামরিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

অবলুপ্ত সোভিয়েত ইউনিয়নের অংশ ছিল আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান। ১৯৯০ সালে সোভিয়েত পতনের পর দুটি দেশ স্বাধীনতা ঘোষণা করে। এর পরেই তাদের সীমান্তে মিশে থাকা নাগোর্নো-কারাবাখ অঞ্চল দখল নিয়ে বিরোধ ক্রমে রক্তাক্ত পরিস্থিতি তৈরি করেছে।

সংঘর্ষ শুরুর পর থেকেই দুই দেশকে সতর্ক করেছে রাশিয়া। চিন্তিত রাষ্ট্রসংঘ।

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।