ঢোলপুর: দীর্ঘ এক বছর পর উমা এসেছিল বাপের বাড়ি। চারিদিকে আনন্দের রেশ উপচে পরেছিল। গতকাল ছিল বিজয়া দশমী। মাকে বিসর্জন দিতে গিয়ে পরিবারের সদস্যদের আর যে ফেরা হবে না তা হয়তো ভাবতে পারেননি রাজস্থানের ঢোলপুর জেলার দশটি পরিবার।

মঙ্গলবার রাতে রাজস্থানের ঢোলপুর জেলার পার্বতী নদীতে ঠাকুর বিসর্জন দিতে গিয়ে তলিয়ে গেল ১০ জন। সূত্র মারফত জানা গিয়েছে ১০ টি দেহ পাওয়া গিয়েছে তবে এখনও তল্লাশি চলছে। ঢোলপুর জেলার কালেক্টর রাকেশ জয়সওয়াল আগেই জানিয়েছিলেন, তাঁরা ৭ টি দেহ উদ্ধার করতে পেরেছেন তবে রাত হয়ে যাওয়ার জন্য উদ্ধারকার্য বন্ধ রেখেছিলেন। বুধবার সকাল থেকে আবার তল্লাশি চালু করবেন। তিনি আরও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রীর ত্রান তহবিল থেকে ১ লক্ষ টাকা করে অর্থনৈতিক সাহায্য করা হবে মৃতের আত্মীয়দের।

ঘটনাস্থলে থাকা এই পুলিশ অফিসার জানিয়েছেন, প্রতিমা নিরঞ্জন চলাকালীন একজন নদীতে স্নান করার জন্য ঝাপ মেরেছিলেন কিন্তু তিনি ডুবতে শুরু করেছিলেন। তাঁকে বাঁচাতে অন্য একজন ঝাপ দিলে সেই ব্যাক্তিও ডুবতে থাকেন।এই ঘটনায় স্থানীয় ডুবুরী এবং রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীকে জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে সাহায্য করার জন্য আবেদন করা হয়েছিল। মঙ্গলবার রাতে ঘটনা ঘটলেও রাত হবার জন্য বুধবার থেকে আবার তল্লাশি শুরু হয়।