কলকাতাঃ  প্রবল চাপের মুখে অবশেষে পিছু হটল শিক্ষা দফতর। গরমের ছুটি কমাল সরকার। আগামী ১০ জুন সমস্ত সরকারি এবং সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত খুলছে। আজ বৃহস্পতিবার ফেসবুকের মাধ্যমে এমনটাই জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। দুমাস ছুটির প্রতিবাদে গোটা বাংলাজুড়ে অসন্তোষ তৈরি হয়েছিল। সরকারের এই সিদ্ধান্তে খুশি অভিভাবকরা।

প্রসঙ্গত, তীব্র গরমের দাপট, ফণি ইত্যাদি একাধিক কারণে ৩ মে থেকে দীর্ঘ দু-মাস গরমের ছুটি ঘোষণা করেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী। টানা ২ মাস এভাবে ছুটি ঘোষণা করায় ক্ষোভ তৈরি হয় জনমানসে। শুধু তাই নয়, এই বিজ্ঞপ্তি নিয়ে বেশ ধোঁয়াশা তৈরি হয়। ছুটি শুধু পড়ুয়াদের নাকি শিক্ষক-শিক্ষিকারও এই সুবিধা পাবেন তা নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়। কিন্তু এরপর বলা হয় পড়ুয়ারা তো বটেই, শিক্ষক-শিক্ষিকাও এই সুবিধা পাবেন। কিন্তু তাতেও সমস্যা তৈরি হয়। স্কুল শিক্ষকদের একাংশের অভিযোগ ছিল, এভাবে টানা দুমাস ছুটি থাকায় ঠিক সে সময় সিলিবাস শেষ করা কঠিন হয়ে পড়বে। তাঁদের সঙ্গে একমত ছিলঅভিভাবকদের একাংশও। যা নিয়ে ক্রমশ বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে বাংলার সর্বত্র।

কার্যত চাপের মুখে পড়েই গত কয়েকদিন ধরেই জল্পনা তৈরি হয়েছিল গরমের ছুটি কাটছাঁট করতে পারে শিক্ষা দফতর। গত মঙ্গলবার এই বিষয়ে বৈঠকে বসেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও পর্ষদ সভাপতি। সেই বৈঠকেই সিদ্ধান্ত হয়, সরকারি ও বেসরকারি সমস্ত স্কুলেই গরমের ছুটি কমবে। এরপর পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়ে ছিলেন, ছুটি কমানোর প্রস্তাব দেওয়া হবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। মুখ্যমন্ত্রীই এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন। এরপরই এদিন ১০ জুন স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হল। আর তা ফেসবুকের মাধ্যমে সবাইকে জানিয়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী।