হায়দরাবাদ : মর্মান্তিক খনি বিস্ফোরণে প্রাণ হারালেন অন্তত ১০ জন শ্রমিক। শনিবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে অন্ধ্রপ্রদেশের কাডাপ্পা জেলার মামিল্লাপাল্লে গ্রামের কালাসাপাডু ব্লকে। ঘটনায় জখম হয়েছেন বহু শ্রমিক। বর্তমানে তাঁরা স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বহু শ্রমিক এখনও ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকে পড়ে থাকার আশঙ্কা করা হচ্ছে। এলাকার মানুষজন এবং পুলিশ একসঙ্গে উদ্ধার কাজ শুরু করেছে। মনে হচ্ছে যে বিস্ফোরক পদার্থের বিস্ফোরণের ফলে মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

জানা গিয়েছে, কাডাপ্পা জেলার ওই পাথরের খাদানে এদিন অন্তত ৪০ জন শ্রমিক কাজ করছিলেন। পাথর ভাঙার জন্য বিস্ফোরক বোঝাই করে রাখা হয়েছিল। সেই বিস্ফোরক থেকেই আচমকা বিস্ফোরণ ঘটে। যদিও সকাল পর্যন্ত চারজন শ্রমিকের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেলেও বেলা বাড়তেই মৃতের সংখ্যা বাড়তে শুরু করে। এখনও পর্যন্ত দশজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেলেও এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এদিকে মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ওয়াই এস জগন মোহন রেড্ডি বিস্ফোরণে মৃত শ্রমিকদের জন্য শোক প্রকাশ করেছেন এবং তার পুলিশ প্রশাসনকে এই দুর্ঘটনার পিছনের সম্ভাব্য কারণ জানতে তদন্তের রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছেন। এছাড়াও তিনি বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন এবং বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্থদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।

কালাসাপাডু ব্লকের উপ-প্রধান গীতা মাদদীলেটী জানিয়েছেন, আজ সকালে জিলেটিন স্টিক মামিল্লাপাল্লে গ্রামের কাছে খনিতে নিয়ে যাওয়া হয়। শ্রমিকরা যখন ওই সামগ্রী নামাচ্ছিল, হঠাৎ জেলটিনের স্টিকগুলো ব্লাস্ট করে। তিনি আরোও জানান যে, এই ঘটনায় পাঁচ জন ঘটনাস্থলেই মারা গিয়েছেন এবং চার জন নিখোঁজ রয়েছে। যদিও পরে ওই চারজনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.