এশিয়ার বৃহত্তম চার্চ সম্পর্কিত কিছু অজানা তথ্য

কোহিমা: সুমি ব্যাপ্টিস্ট চার্চ জুনহেবোতো চার্চটির নাম হয়তো অনেকেই শুনেছেন৷ ভারতের উত্তর পূর্বের নাগাল্যান্ডে অবস্থিত এই চার্চটি৷ এটিই বিশ্বের বৃহত্তম চার্চ৷ মূলত নীল গম্বুজ এবং সাদা চূড়ার জন্যই বিখ্যাত৷ কিন্তু এই চার্চটিকে ঘিরেই রয়েছে অনেক অজানা তথ্য৷ পরিকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য এই চার্চটি বেশ কিছুদিন ধরেই এটি বন্ধ ছিল৷

তবে, আগামী ২২এপ্রিল এশিয়ার এই বৃহত্তম চার্চ আবারও খুলছে ভক্তদের উদ্দেশে৷ প্রায় দশ বছর পর সকলের জন্য আবারও খোলা হচ্ছে এই চার্চটি৷ এই চার্চ সম্পর্কিত রইল বেশ কিছু অজানা তথ্য৷ এগুলি হল-

১) এই চার্চটির নির্মাণকার্জ শুরু হয়েছিল ৭মে, ২০০৭ সালে৷
২) ৩১মার্চ,২০১৭তে শেষ হয় সেই নির্মাণকার্য৷ প্রায় ৩৬কোটি টাকা খরচ করা হয় এই নির্মাণকার্যের জন্যই৷
৩) এই চার্চটিতে আসনসংখ্যা প্রায় ৮,৫০০জন৷
৪) সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১৮৬৪ মিটার উঁচু ৷
৫) এই চার্চটির নির্মাতা ছিলেন অখিতেকতুরা৷ তিনি ডিমাপুরের বাসিন্দা৷
৬) এই চার্চটি তৈরি হয়েছে মোট ২৩লক্ষ তিয়াত্তর হাজার চারশো ছিয়াত্তর এলাকাজুড়ে৷
৭) আগামি ২২এপ্রিল এই চার্চটি আবার সকলের জন্য খুলতে চলেছে৷

All rights reserved by @ Kolkata24x7 II প্রতিবেদনের কোন অংশ অনুমতি ছাড়া প্রকাশ করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
-