রায়গঞ্জঃ শ্বশুরবাড়ির দরজার সামনে স্বামীকে ফিরে পাওয়ার দাবিতে ধর্ণায় বসলেন স্ত্রী। রায়গঞ্জ থানার গৌরী গ্রাম পঞ্চায়েতের নূরীপুর গ্রামের ঘটনাটি ঘটেছে। স্ত্রী পারভিনা খাতুনের অভিযোগ, লকডাউন শুরুর পরদিন থেকেই নিখোঁজ হয়ে যান স্বামী আরসাদ আলম। শ্বশুরবাড়ির সঙ্গে অনেকবার যোগাযোগ করেও আরশাদের খোঁজ মিলেনি।

শ্বশুরবাড়ির লোকজন এই বিয়ে মেনে না নেওয়ায় রায়গঞ্জে তারা ভাড়া বাড়িতে থাকতেন। লকডাউন শুরুর পরদিন ভোর সাড়ে তিনটার সময় চুপ করে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় আরসাদ। থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করেছেন পারভিনা। কিন্ত আরশাদ এখন নাকি তাকে নিতে চাইছে না।

গত বছরের ১৭ জানুয়ারি বিয়ে হয় তাদের। পারভিনা বলেন, ‘হোয়াটসঅ্যাপে আমার জাল সই করা ডিভোর্সের কাজপত্র পাঠিয়েছে স্বামী। কিন্তু আমি ডিভোর্স চাই না। আমার যাওয়ার কোনো জায়গা নেই’।

তাঁর দাবি, পরিবারের লোকেরা ষড়যন্ত্র করে আমার থেকে স্বামীকে সরিয়ে দিতে চাইছে। যতক্ষণ না পর্যন্ত আমার স্বামীকে পাচ্ছি গেটের সামনেই বসে থাকবো। কারন আমি জানি আরশাদ এই বাড়িতে আছে।

যদিও আরশাদের দাদা রসিদুল আলম জানিয়েছেন ,প্রায় দু মাসের বেশি সময় যোগাযোগ নেই ভাইয়ের সাথে। কোথায় আছে বলতে পারব না’। তাঁর বক্তব্য, ভাই বিয়ে করে স্ত্রীর সঙ্গে রয়েছেন বলে পরিবারের লোকজনের জানেন। যদিও গ্রামবাসীদের দাবি, আরশাদ গ্রামেই আছে। প্রায়ই দেখা যায় তাকে।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা