কলকাতা: সিপিএমের দলীয় মুখপত্রের খবর বিকৃত করে টেলিভিশনের আলোচনায় তুলে ধরেছিলেন বিজেপি নেতা রাম মাধব। কিন্তু পরে তিনি বুঝতে পারেন দলীয় সমর্থকদের কাছ থেকে এই বিষয়ে ভুল তথ্য পেয়েছিলেন‌। আর সেটা জানার পর দুঃখ প্রকাশ করলেন বিজেপির এই তাত্ত্বিক নেতা।

সম্প্রতি লাডাক নিয়ে সিপিএমের দলীয় মুখপত্র গণশক্তিতে একটি খবর প্রকাশিত হয়েছিল। ওই খবরটি দেশবিরোধী অভিযোগ তুলে রাজ্য বিজেপির পক্ষ থেকে বিক্ষোভ দেখানো হয়েছিল। যদিও সিপিএমের বক্তব্য ছিল , ওই প্রতিবেদনটিকে বিকৃত করে বিজেপি প্রচার চালাচ্ছে।

এরপর রাম মাধব একটি টেলিভিশনের বিতর্কে‌ অংশ নিয়ে বামেদের আক্রমণ করতে গিয়ে ওই প্রতিবেদনটির প্রসঙ্গ তোলেন। তখন সেখানে তিনি বাংলায় প্রকাশিত কমিউনিস্টদের মুখপত্রের ক্লিপিং দেখিয়ে উল্লেখ করেন সেখানে বলা হচ্ছে ভারত চিনের সীমান্তের ভিতরে ঢুকে হামলা চালিয়েছে। এদেশের কমিউনিস্টরা সব সময় অন্য কমিউনিস্ট দেশের পক্ষে কথা বলে এই অভিযোগ তুলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

এই ঘটনার পর সিপিএম পলিটব্যুরোর সদস্য মহম্মদ সেলিম ওই টেলি বিতর্কের ফুটেজ আপলোড করে রাম মাধবকে সেটা ট্যাগ করে দিয়ে মন্তব্য করেন, বিজেপির সাধারণ সম্পাদক তথা বিদেশনীতি বিশেষজ্ঞ রাম মাধব একটি ফেক হোয়াটসঅ্যাপকে টেলিভিশনে তুলে ধরেছেন। পাশাপাশি তিনি অনুরোধ জানান একজন ভালো বাংলা অনুবাদকের সাহায্য নিয়ে ওই প্রতিবেদনটি পড়তে। কারণ প্রতিবেদনটি বিকৃত করা হচ্ছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় সেলিমের ওই‌ টুইট ছড়িয়ে পড়ে। এরপর অবশ্য রাম মাধব স্বীকার করে নেন, সেলিম ঠিক। তিনি বরং যে ব্যাখ্যা করেছিলেন সেটা পুরোপুরি সত্য নয়। ওই ভুলের জন্য দুঃখ প্রকাশও করেন।

তিনিও দাবি করেন, এইভাবে হোয়াটসঅ্যাপ স্টোরি’তে তিনি বিশ্বাস করেন না। কিন্তু এক্ষেত্রে বাংলার একজন প্রবীণ শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি এটা পাঠিয়েছিলেন বলে তিনি সঠিক বলে বিশ্বাস করেছিলেন।তিনি জানান, গণশক্তিতে যেটা বেরিয়েছিল‌ সেটা ছিল চিনের বক্তব্য ,সেটা ওই মুখপত্রের নিজস্ব বক্তব্য নয়।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।