আউট হয়ে ফিরছেন সচিন৷ বৃহস্পতিবার ইডেনে৷

বিসিসিআই ডিআরএস সিস্টেমকে কখনই মেনে নেয়নি৷ ভারতের কোনও ম্যাচেই, সেটা দেশের মাটিতে হোক কিংবা বিদেশে ডিআরএস নিয়ে ঘোর আপত্তি রয়েছে ভারতের৷ বৃহস্পতিবার কিন্তু ইডেনের ম্যাচে সচিনের আউট হওয়ার পর কিন্তু হাত কামড়াতেই পারেন শ্রীনিরা৷ কারণ, শিলিংফোর্ডের বল সচিনের পায়ে লাগতেই আঙুল তুলে দেন আম্পায়ার নাইজেল লং ৷ পরে টিভি রিপ্লেতে পরিস্কার দেখা গিয়েছে যে বল সচিনের প্যাডের অনেকে উপরে লাগে৷ ফলে উইকেটে না লেগে, বল উপর দিয়ে চলে যাওয়ার সম্ভাবনাই ছিল বেশি৷ পাশাপাশি অফ-স্টাম্পেরও বাইরে ছিল বল৷ তাই একটি বিতর্কিত সিদ্ধান্তেরই শিকার হতে হয় মাস্টার ব্লাস্টারকে৷ সচিন যে আউট ছিলেন না, সে ব্যাপারে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় সহ বাকি প্রাক্তনরাও একমত৷ তবে একই সঙ্গে ডিআরএস সিস্টেম নির্ভুল নয় বলেও জানিয়েছেন সৌরভ৷ আউট হওয়ার আগে শিলিংফোর্ডের বলে এদিন দুটো বাউন্ডারিও মারেন সচিন৷ ১০ রানের বেশি করতে পারেননি তিনি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.