হাওড়া : ব্রিটিশ আমল থেকে বাংলায় পাটশিল্প একচেটিয়া প্রভাব বিস্তার করে। এখনো বাংলার কয়েক লক্ষ পরিবার পাটশিল্পের উপর প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে নির্ভরশীল। কিন্তু, বিভিন্ন কারণে বাংলার ঐতিহ্যবাহী পাটশিল্প আজ নানা সমস্যার সম্মুখীন। আর তারই জেরই এরাজ্যের যুবক-যুবতীরা একপ্রকার এই শিল্প থেকে ক্রমশ মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। এবার বাংলার পাটশিল্পকে চাঙ্গা করতে উদ্যোগী হল পশ্চিমবঙ্গ সরকার।

পাটশিল্পে কর্মসংস্থান বৃদ্ধি ও দক্ষ কর্মী তৈরির লক্ষ্যে বিশেষ প্রশিক্ষণ শিবিরের আয়োজন করল শ্রম দপ্তর। সোমবার গ্রামীণ হাওড়ার আমতা-১ ব্লকের আমতা পীতাম্বর উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এই প্রশিক্ষণ শিবিরের আনুষ্ঠানিক সূচনা করেন শ্রম দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী তথা উলুবেড়িয়া উত্তরের বিধায়ক নির্মল মাজি। জানা গেছে, এমপ্লয়মেন্ট ব্যাঙ্কে নথিভুক্ত যেকোনো ব্যক্তি(বয়স নূন্যতম ১৮) এই প্রশিক্ষণ শিবিরে অংশ নিতে পারেন। মোট তিনমাস প্রশিক্ষণ পর্ব চলবে বলে জানা গেছে। তার মধ্যে একমাস প্রথাগত ও দু-মাস হাতেকলমে ট্রেনিং দেওয়া হবে বলে জানা গেছে। প্রশিক্ষণ চলাকালীন বৃত্তি প্রদান করা হবে। প্রশিক্ষণের শেষে মিলবে কর্মসংস্থান। মিলবে বেতন, পিএফ সহ অন্যান্য সুবিধা। নির্মল মাজি ছাড়াও এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শ্রম দপ্তরের আধিকারিক সুজয় সেন, চিরঞ্জীব ঘোষ, আমতা-১ ব্লকের বিডিও সুজয় ধর সহ অন্যান্যরা।

শ্রম দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, সারারাজ্যে মোট ১২ টি কর্মসংস্থান কেন্দ্রে এই প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। শ্রম দপ্তরের কর্তাদের আশা, এর মাধ্যমে বাংলায় প্রচুর কর্মসংস্থানের সম্ভাবনা রয়েছে। সোমবার আমতার এই অনুষ্ঠানে প্রায় ১২০ জন যুবক-যুবতী প্রশিক্ষণের জন্য উপস্থিত ছিলেন বলে জানা গেছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।