তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়াঃ মারণ ভাইরাস করোনা প্রতিরোধে রাজ্যের তরফে কলকাতা সহ পুর এলাকা গুলিতে ‘লক ডাউন’ ঘোষণার সঙ্গে বাঁকুড়া শহরের বাজার গুলিতে কালোবাজারির অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। আর সঙ্গে সঙ্গে তা প্রতিরোধে নামলো পুলিশ ও পুরসভা। সোমবার ডিএসপি, ডিইবি অভিজিৎ ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে জেলা পুলিশের আধিকারিকরা বাঁকুড়া শহরের বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখেন।

কথা বলেন ক্রেতা-বিক্রেতা সকলের সঙ্গেই। পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, চিন্তার কিছু নেই, লক ডাউনের দিন গুলিতে সুফল বাংলা সহ অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় বাজার গুলি খোলা থাকবে। সরকার নির্দ্ধারিত মূল্যেই জিনিসপত্র মিলবে। মূল্য বৃদ্ধি রোধে তাদের তরফে নিয়মিত নজরদারি চলবে জানিয়ে তিনি বলেন, এখনো পর্যন্ত এখানে কালো বাজারির কোন অভিযোগ নেই।

অন্যদিকে পৌরপ্রধান মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত মাইক হাতে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে পথে নামেন। তিনি শহরের ব্যবসায়ীদের কাছে আবেদন রাখেন, এই সমস্যার দিন গুলিতে কেউ ক্রেতাদের কাছে অতিরিক্ত মূল্য নেবেননা। একই সঙ্গে ক্রেতা সাধারণকেও অযথা ভীড় না করার আবেদন জানান তিনি।

পরে সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিদের মুখোমুখি হয়ে পৌরপ্রধান মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত বলেন, করোনা নিয়ে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে পৌরসভার তরফে প্রচার চালানো হচ্ছিল। এবার লক ডাউন ঘোষণার পর আমরা আরো বেশী সচেতন করতে পথে নেমেছি।