বৃহস্পতিবার মুম্বইতে ইউনিসেফের অনুষ্ঠানে সচিন তেন্ডুলকর৷

অবসর নিয়েছেন৷ তা বলে কাজ কমছে না এক্ষুনি৷ সচিন রমেশ তেন্ডুলকর নামের মাহাত্মকে কাজে লাগাতেই রাস্ট্রসংঘ তাঁকে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে ঘোষণা করল বৃহস্পতিবার৷ দক্ষিণ এশিয়ার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করার পর সচিন জানাচ্ছেন,‘ধন্যবাদ সবাইকে আমাকে এই পদে সুযোগ দেওয়ার জন্য৷ একই সঙ্গে আমার জীবনের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করতে দেওয়ার জন্য৷ রাস্ট্রসংঘের এই অ্যাম্বাসেডরের দায়িত্ব পালন করতে আমি আমার সেরাটা উজাড় করে দেব৷ ’ গত আট-দশ বছরের বেশি সময় ধরে বিভিন্ন বহুজাতিক সংস্থার সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন৷ রাস্ট্রসংঘ দু’বছরের জন্য এই পদে তাঁকে নিযুক্ত করেছে৷ এদিন সচিন জানিয়েছেন,‘ আমি এটা জেনে খুব অবাক হয়েছি যে বিশ্বের ৩৬ শতাংশ মানুষ এখনও সুস্বাস্থকর বাথরুম ব্যবহারের সুযোগ পান না৷ একজন সুস্থ মানুষের বেড়ে ওঠার জন্য এটা কখনই কাম্য নয়৷’ পরিচ্ছনতার অভাবে বিশ্বের ১৬০০ শিশু প্রত্যেক দিন মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে এ খবর জানার পর বেশ আঘাত পেয়েছেন চল্লিশ বছরের এই প্রাক্তণ ক্রিকেটার৷,‘আমি চাই আরও মানুষ সচেতন হোন এই বিষয়ে৷সেই চেষ্টাই করব৷’ এই সব বলতে বলতেই তাঁর মনে পড়ে যায় ছোটবেলার কথা,‘ছোটবেলায় যখনই গলি ক্রিকেট খেলে বাড়ি ফিরতাম তখন হাত পরিষ্কার করার কথা খেয়াল করতাম না৷ মা তখন হাত ধোয়াতেন এবং তারপর খেতে দিতেন৷’ পোলিও নিবারণের জন্যও ক্যাম্পেন করবেন তিনি৷ সচিন মনে করেন এই সব বিষয়ে সঠিক তথ্য পৌঁছে দিতে হবে মানুষের কাছে৷