বর্ধমান: তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পোস্টারে কালি ও কাঁদা লেপে দিল দুষ্কৃতীরা৷শনিবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে বর্ধমান-দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত বর্ধমান পুরসভা এলাকার ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের ছোটনীলপুর এলাকায়৷ অভিযোগ, এদিন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী ডা: মমতাজ সংঘমিতার প্রচারের ব্যানার ও পোষ্টারে প্রার্থীর মুখের ছবিতে কালি লাগিয়ে দেয় স্থানীয় দুষ্কৃতীরা৷ একই সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পোস্টারে কালি ও কাঁদা লেপে দেন তারা৷ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়৷ এ বিষয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর তথা তৃণমূল নেতা বিভূতোষ মণ্ডল বর্ধমান থানায় লিখিত অভিযোগ করেন৷ বিভূতোষ বাবুর অভিযোগ, বেশ কিছুদিন ধরেই রাতের অন্ধকারে তৃণমূলের দলীয় পতাকা  খুলে নিচ্ছে দুষ্কৃতীরা৷ শনিবার প্রার্থী ও দলনেত্রীর মুখের ছবিতে যেভাবে কালি লাগানো হয়েছে, তার সদুত্তর চেয়ে আমরা থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছে তৃণমূল৷  অভিযোগের কপি পুলিশ সুপার, নির্বাচন আধিকারিক এবং মহকুমা শাসককেও পাঠান হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিভূতোষ বাবু৷

 

——————————————————————————————————————————————————-

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

Comments are closed.