মেলবোর্ন: ব্রিসবেন টেস্টের চতুর্থ দিনে ভারতের ‘ড্রেসিংরুম-নাটকে’র নয়া মোড়৷ ওইদিন সকালে গাব্বায় প্র্যাকটিস উইকেটে ব্যাটিং করতে গিয়ে শিখর ধাওয়ান হাতে চোট পাওয়ায় ৫ থেকে ৬ মিনিটের নোটিশে দিনের শুরুতেই নামতে হয়েছিল বিরাট কোহলিকে। এই সিদ্ধান্তে তীব্র আপত্তি জানিয়েছিলেন ভারতীয় ব্যাটিং সেনসেশন। এরপর বিরাট বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েছিলেন ধাওয়ানের সঙ্গে।
অল্প সময়ের নোটিশে কোহলি কিছুতেই ব্যাটিংয়ে নামতে চাইছিলেন না। সেদিন নাকি উত্তেজিত ভঙ্গিতেই মুখোমুখি হয়েছিলেন কোহলি-ধাওয়ান! মাত্র ১ রানে ফেরার পর আরেক দফা ঝাল ঝেড়েছিলেন ধাওয়ানের ওপর। কোহলি আরও খেপে যান, যখন ধাওয়ান জানান, দেশের জন্য খেলতে পেরে গর্বিত, চোট নিয়ে কোনও সমস্যা তাঁর নেই। ধাওয়ান এ-ও জানালেন, পারফর্ম না করতে পারলে বসে থাকাই ভালো। আদতে তিনি সেটাই করেছেন। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন ভারতীয় দলের ডিরেক্টর রবি শাস্ত্রী।
সেদিন ৭ নম্বরে নেমে ৮১ রানের একটি লড়াকু ইনিংস খেলেছিলেন ধাওয়ান। ইনিংসের জন্য প্রশংসা পেলেও তাঁর চোট নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। ভারতের আউট মিছিলের মধ্যে সাবলীলভাবে ব্যাটিং করেছেন। পরে ফিল্ডিংও করেছেন শুরু থেকে পুরোটা। চোটে আক্রান্ত একজন খেলোয়াড়ের যেমন অস্বস্তি চোখে পড়ার কথা, তেমনটি দেখা যায়নি ধাওয়ানকে দেখে। অনেকের ধারণা, চোটটা হয়ত গুরুতর ছিল না। তাহলে শুরুতে নামতে পারলেন না কেন? প্রশ্ন কিন্তু উঠছেই৷