স্টাফ রিপোর্টার, নন্দীগ্রাম: ঘূর্ণিঝড় আমফানের ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগে এখন শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে বিরোধী দল বিজেপি থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ। বারবার ক্ষোভ-বিক্ষোভের উত্তপ্ত হয়ে উঠছে জেলার বিভিন্ন প্রান্ত। কোথাও আমফান দুর্নীতির বিরুদ্ধে ঘেরাও করে বিক্ষোভ কর্মসূচি চলছে আবার কোথাও শাসকদলের বিরুদ্ধে পড়ছে কাটমানির ধাঁচে পোস্টার। আর এর মাঝেই শাসক দল তৃণমূলের অন্যতম হাতিয়ার হয়ে উঠেছে পেট্রোল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির।

সোমবার বিকেলে একদিকে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নন্দীগ্রামে চলছিল বিজেপির ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জির জন্ম জয়ন্তী পালন অন্যদিকে তৃণমূলের তরফ থেকে চলছিল পেট্রোল ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে প্রতিবাদ মিছিল। সোমবার বিকেলে একই সঙ্গে দুই রাজনৈতিক দলের পৃথক দুই কর্মসূচির মানুষের উত্তপ্ত হয়ে উঠল গোটা এলাকা।

অভিযোগ এদিন মিছিল চলাকালীন হঠাৎ বিজেপির মিছিলের পেছনে হামলা করে তৃণমূল। উল্টে তৃণমূলের তরফ থেকে অভিযোগ, এদিন বিজেপির মিছিল যখন তৃণমূলের প্রতিবাদের কর্মসূচির কাছে আসে ঠিক তখনই বিজেপির কয়েকজন কর্মী তৃণমূলের ওপর হামলা চালায়। ঘটনায় প্রকাশ্যে পুলিশের সামনে তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে জোর হাতাহাতি বেঁধে যায়।

রড, লাঠি, বাঁশ নিয়ে একে অপরের সঙ্গে সংঘর্ষ চলে। ঘটনায় গুরুতর ভাবে আহত হয় বিজেপির দুইজন কর্মী। তাদের স্থানীয়দের তৎপরতায় স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। খোদ রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর গড়ে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ চলছিল। এবার তার মাঝেই দুই দলের রাজনৈতিক কর্মসূচির মাঝে উত্তপ্ত হয়ে উঠল এলাকা।

বিজেপি এক নেতার দাবি, “এদিন শান্তিপূর্ণভাবে আমাদের মিছিল চলছিল। হঠাৎ করে চিলের পেছনে তৃণমূলের কয়েকজন দুষ্কৃতী আমাদের ওপর হামলা চালায়। তৃণমূল বুঝে গেছে একুশ সালে বিজেপি আসছে। তাই ওরা এই ধরনের ঘটনা ঘটাচ্ছে।”

তৃণমূল নেতা মহাদেব বাগ বলেন, “আমাদের কর্মসূচি চলাকালীন হঠাৎ কয়েকজন তৃণমূলের দুষ্কৃতী আমাদের ওপর হামলা চালায়। বিজেপির এই ধরনের উশৃংখল মনোভাবের জন্য তীব্র ধিক্কার জানাই”। সবমিলিয়ে ফের উত্তপ্ত পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নন্দীগ্রাম।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ