বাঁকুড়া: বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার হল মা ও ছেলের ঝুলন্ত মৃতদেহ। মৃতদের নাম গীতা চট্টোপাধ্যায় (৬২) ও তার ছেলে তাপস চট্টোপাধ্যায় (৩৮)। বাঁকুড়ার বড়জোড়া বিডিও অফিস-সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক সংলগ্ন এলাকার ঘটনা। স্থানীয় সূত্রে খবর, বড়জোড়া এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছেন ষাটের্দ্ধা গীতা চট্টোপাধ্যায় ও তার ছেলে তাপস চট্টোপাধ্যায়।

সোমবার বড়জোড়া বিডিও অফিসের সামনের এলাকার একটি বাড়ি থেকে পচা দুর্গন্ধ ভেসে আসায় ঐ এলাকার মানুষের সন্দেহ হয়। তারাই পুলিশে খবর দেন। পরে বড়জোড়া থানার পুলিশ এসে ঘরের দরজা ভেঙে ঝুলন্ত অবস্থায় মা ও ছেলের দেহ মৃতদেহ উদ্ধার করে। এই ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

পুলিশের পক্ষ থেকে মৃতদেহ দু’টি ময়নাতদন্তের জন্য বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বড়জোড়া এলাকার তৃণমূল নেতা ও স্থানীয় বাসিন্দা আলোক মুখোপাধ্যায় বলেন, গত কয়েক দিন ধরে ওনাদের দেখতে পাইনি। মৃতা গীতা চট্টোপাধ্যায়কে আমরা ‘বৌদি’ বলেই ডাকতাম।

এদিন এলাকার মানুষ ঐ বাড়ি থেকে দুর্গন্ধ পেয়ে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ দরজা ভেঙ্গে মৃতদেহ দু’টি উদ্ধার করে। কি কারনে এই জোড়া মৃত্যু সেই নিয়ে এলাকায় যথেষ্ট ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা করে ঘটনার তদন্ত চলছে বলে জানানো হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও