কলকাতা: নারদকাণ্ডে প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় ও তার স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়কে ইডির ইমেল৷ তবে কোনও ই-মেল পাননি বলে দু’জনই সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন৷ সূত্রের খবর, দুটি কোম্পানির আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত তথ্য চাওয়া হয়েছে৷ নারদকাণ্ডে নাম জড়িয়েছে প্রাক্তন মেয়র ও মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়ের৷

এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) র নজরে শোভন পত্নী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের কোম্পানি ‘জিসিআর’। এর আগেও একাধিকবার নারদা কান্ডে সল্টলেক সিজিও কমপ্লেক্সে ইডি দফতরে হাজিরা দেন প্রাক্তন মেয়র পত্নী রত্না চট্টোপাধ্যায়। প্রায় কয়েক ঘন্টা তাকে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করে ইডির তদন্তকারী আধিকারিকরা।

সূত্রের খবর, জিজ্ঞাসাবাদের সময় তার বয়ানও রেকর্ড করা হয়। ইডি দফতর থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময়ে এর আগে রত্না জানিয়েছিলেন, তদন্তের স্বার্থে ফের ইডি তলব করলে আসব। তবে এখনও পর্যন্ত নারদা-কাণ্ডে ইডির তরফে কোনও মেল আসেনি বলেই জানা যাচ্ছে।

অন্যদিকে কলকাতা পুরসভার মেয়র পদ থেকে পদত্যাগ করার পর শোভন চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, তাঁকে না জানিয়ে তার স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায় একটি কোম্পানি খুলেছে। সেই কোম্পানির নাম জিসিআর যার অর্থ গোপাল-চিকু-রত্না। চিকু বলতে অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। যিনি নাকি রত্নার একান্ত বন্ধু বলেই দাবি করেছিলেন প্রাক্তন মেয়র। শোভন-রত্নার বিবাহ বিচ্ছেদ মামলার অন্যতম কারণ নাকি তাঁদের ওই বন্ধুত্ব। অন্যদিকে রত্নার অভিযোগ আবার শোভন-বৈশাখী সম্পর্ক নিয়ে।

সূত্রের খবর, প্রাক্তন মেয়র ও তার বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় ইডি কে রত্নার বেআইনি কোম্পানি নিয়ে বেশ কিছু নথি ও তথ্য দিয়েছেন। তারা এমন কিছু তথ্য দিয়েছেন যার পরিপ্রেক্ষিতে প্রাক্তন মেয়র পত্নী রত্না চট্টোপাধ্যায় কে তলব করে জিজ্ঞাসাবাদ করে ইডি। শুধু রত্না চট্টোপাধ্যায় নয় তার কোম্পানির সহযোগী অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় ওরফে চিকু কেও তলব করেছিল ইনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টর বা ইডি। ইডি এখন জানতে চায় জিসিআর কোম্পানির সঙ্গে নারদকাণ্ডের টাকার কোনও যোগ আছে কিনা?

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ