প্রীতম সরকার, রায়গঞ্জঃ  তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত গুঞ্জরিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্যার স্বামী গুলিবিদ্ধ দুস্কৃতিদের হাতে গুলিবিদ্ধ হওয়ায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাত দশটা নাগাদ ইসলামপুর থানার গুঞ্জরিয়া এলাকায়। গুলিবিদ্ধ ব্যক্তিকে প্রথমে ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে গভীর রাতেই শিলিগুড়িতে স্থানান্তর করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। ইসলামপুর পুলিশ জেলার পুলিশ সুপার শচীন মক্কর জানিয়েছেন, এই ঘটনাত অভিযুক্ত সন্দেহে বেশ কয়েকজনের নাম পাওয়া গিয়েছে। তাদের খোঁজে তল্লাশী চালানো হচ্ছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, উত্তর দিনাজপুর জেলার ইসলামপুর থানার গুঞ্জরিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃনমুল সদস্য রুকিয়া বেগমের স্বামী ইফতেকার আহমেদ এদিন রাত দশটা নাগাদ হেঁটে বাড়ি ফিরছিলেন। বাড়ির খুব কাছেই দুষ্কৃতীরা তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় বলে অভিযোগ। দুটি গুলি তাঁর শরীরে লাগে।

রক্তাক্ত অবস্থায় ইফতেকার আহমেদকে ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসে এলাকাবাসী। খবর ছড়িয়ে পড়তেই তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থকরা হাসপাতালে পৌঁছান। সেখানে এই ঘটনায় উত্তেজনা দেখা দেয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। ইসলামপুর থানার পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায়।

অবস্থার অবনতি হওয়ায় আহত তৃণমূল নেতাকে শিলিগুড়িতে স্থানান্তর করা হয়েছে। তৃণমূল কংগ্রেস নেতা জাভেদ আখতার জানিয়েছেন, ইফতেকার আহমেদ একজন নিরীহ মানুষ। কারা তাঁকে কী কারনে গুলি করল কিছুই বোঝা যাচ্ছে না। পুলিশ তদন্ত করে দেখছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ