মুম্বই- জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে একটি আলোচনা সভায় কেঁদে ফেললেন অভিনেত্রী দিয়া মির্জা। জলবায়ু যে ভাবে পরিবর্তন হচ্ছে এবং তা বিপদ ডেকে আনছে, তা নিয়েই এই আলোচনা সভা ছিল। সেখানেই হঠাৎ আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন তিনি।

আবেগপ্রবণ হয়ে দিয়া মির্জা এদিন বলেন, কান্না পেলে তা নিয়ন্ত্রন করবেন না। কষ্ট হলে প্রকাশ করুন।। অনুভব করুন। সবকিছুকে গভীর ভাবে অনুভব করে বিষয়গুলি বোঝার চেষ্টা করুন। এটা ভালো। আমরা এর থেকে শক্তি পাই। আর এটা কোনও পারফর্মেন্স নয়।

দিয়াকে কাঁদতে দেখে একজন টিস্যু পেপার এগিয়ে দেন তাঁর দিকে। কিন্তু অভিনেত্রী প্রত্যাখ্যান করে বলেন, আমার দরকার নেই পেপার। দিয়া পরে জানান, সকালে কোব ব্রায়ান্ট ও তাঁর মেয়ের হেলিকপ্টার ক্র্যাশে মৃত্যুর খবর পেয়েছিলেন। এই খবর পাওয়ার পর থেকেই তাঁর মন খারাপ ছিল।

দিয়া বলছেন, ভিন্ন দিনে আমরা ভিন্ন বিষয় নিয়ে মন খারাপ করে ফেলি। কিন্তু আমরা তাও নিজের খেয়াল রাখি। আমার রক্তচাপ কম ছিল তাই বিষয়টা নিয়ে ভেঙে পড়ি।

কিন্তু দিয়ার এই কান্না দেখে টুইটারে বিভিন্ন রকমের প্রতিক্রিয়া দেন নেটিজেনরা। বিভিন্ন রকমের ট্রোলিং-এরও শিকার হন দিয়া মির্জা। অনেকেই তাঁকে সস্তার গ্রেটা থুনবার্গ বলেও আক্রমণ করেন। কেউ আবার লেখেন, দিয়া মির্জা কেঁদে জয়পুরে জলের সমস্যার সমাধান করছেন।

তবে শুধু নিন্দুকই নয়। দিয়ার ভক্তরা তাঁর সমর্থনেও কথা বলেছেন।