স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: স্বাধীনতা দিবসের আগে বাঁকুড়া জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে নিশ্চ্ছিদ্র নিরাপত্তায় মুড়ে দেওয়া হয়েছে জঙ্গল মহল। যেকোনও ধরণের নাশকতামূলক কাজকর্ম এড়াতে চলছে নাকা চেকিং। অবস্থানগত দিক থেকে যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ এই এলাকা। বাঁকুড়া-ঝাড়গ্রাম ও পশ্চিম মেদিনীপুরের সীমানাবর্তী এই এলাকা এই জঙ্গলমহল। ফলে কোনও ধরণের ঝুঁকি নিতে রাজী নয় প্রশাসন।

সেকারণেই এদিন সকাল থেকে পুলিশী টহলদারির পাশাপাশি মোটর বাইক সহ সমস্ত ধরণের যানবাহন আটকে চলছে তল্লাশি। অন্যাদিকে স্বাধীনতা দিবসকে সামনে রেখে কড়া নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয়েছে গোটা জলপাইগুড়ি জেলাকেও। উত্তরের এই জেলায় জাতীয় ও রাজ্য সড়কের পাশাপাশি জেলা পুলিশেরর পক্ষ থেকে বিভিন্ন রাস্তায় নাকা চেকিং চলছে।

জেলার বাংলাদেশ ও ভুটান সীমান্তে বিএসএফ, এসএসবি-র পক্ষ থেকেও চলছে কড়া নজরদারি। আগামীকাল শনিবার ১৫ আগষ্ট। দেশের ৭৪তম স্বাধীনতা দিবস। এই উপলক্ষে যে কোনও নাশকতা রুখতে শহর ও বাইরের বিভিন্ন জায়গায় নাকা চেকিং করা হচ্ছে।

জলপাইগুড়ির গোশালা মোড়, পাহাড়পুর, তিস্তা সেতু সংলগ্ন এলাকায় জাতীয় সড়কে বিভিন্ন যানবাহন থামিয়ে কড়া চেকিং শুরু হয়েছে। জলপাইগুড়ি শহর ও সংলগ্ন এলাকাতেও একইভাবে নজরদারি চালাচ্ছে কোতোয়ালি থানার পুলিস। রেল স্টেশন, শপিংমল, বাসস্ট্যান্ড ও বাজার এলাকাগুলিতে সমানভাবে নজরদারি চালানো হচ্ছে।

শহরের দিনবাজার সহ বিভিন্ন বাজার ও রাস্তার মোড়গুলিতে নজরদারিও চালাচ্ছে সাদা পোশাকের পুলিস। স্বাধীনতা দিবসের প্রায় এক সপ্তাহ আগে থেকেই জেলা পুলিসের পক্ষ থেকে এই তল্লাসি ও নজরদারি চালানো হচ্ছে। জেলার বিভিন্ন রাস্তায় মোটরবাইক ও গাড়ি দাঁড় করিয়ে পুলিসের পক্ষ থেকে তল্লাসি চালানো হচ্ছে। সন্দেহজনক কিছু নজরে এলেই তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এককথায় উত্তর থেকে দক্ষিণ জেলা জুড়ে সর্বত্রই চলছে বাড়তি নজরদারি।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও