স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর : করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে ত্রস্ত গোটা দুনিয়া। কিছুতেই মিলছে না রেহাই মারণ এই ব্যাধি থেকে। এই অবস্থায় করোনা সতর্কতায় দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। মারণ এই ব্যাধির থেকে বাঁচতে সরকারের তরফে সাধারণকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ফলে সরকারি নির্দেশ মেনে সামাজিক অনুষ্ঠান বন্ধ রেখে কোনও রকম করে হল বারাকপুরের প্রসিদ্ধ হনুমান মন্দিরে হনুমান জয়ন্তী উদযাপন।

কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের প্রশাসনিক নির্দেশ মেনে সামাজিক উৎসব বন্ধ রেখেই উত্তর ২৪ পরগনার বারাকপুরের প্রসিদ্ধ হনুমান মন্দিরে পালিত হল হনুমান জয়ন্তী । নমঃ নমঃ করে এদিন মন্দিরের পুরোহিতরা বজরঙবলির পুজো করলেন। বজরঙবলির পুজোর জন্য মন্দির কমিটি আগেই ঘোষণা করে দিয়েছিলো, করোনা ভাইরাসের সতর্কতার জেরে এবছর কেউ যেন মন্দিরে পুজোর জন্য বা পুজো দেখতে ভিড় না করেন । বারাকপুরের হনুমান মন্দিরের দরজা বন্ধ করেই হল সকালের আরতি। শুধুমাত্র মন্দিরের কয়েকজন পুরোহিত সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মন্দিরের দরজা বন্ধ করে হনুমান জীর পুজো করলেন ।

পুজোর শেষে মন্দিরের সামনে থাকা মানুষজন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মন্দিরের বাইরে দাঁড়িয়েই আরতির প্রদীপের শীষ মাথায় নেন। মন্দিরের পুরোহিত পবন সিং বলেন, “আমরা সরকারি নির্দেশ মেনেই পুজোর সামাজিক উৎসব বন্ধ রেখে পুজোর আরতি করেছি । প্রত্যেক বছর আমাদের মন্দিরে ৫০ হাজারের ও বেশি মানুষ হনুমানজির পুজো দিতে এই মন্দিরে আসেন ।

তবে এবছর আগে থেকেই ভক্তদের উদ্দেশ্যে মন্দির কমিটি জানিয়ে দেয় পুজো দিতে কেউ মন্দিরে ভিড় করবেন না । মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে এবছর পুজোর আরতির লাইভ ভিডিও ফুটেজ ফেসবুকের মাধ্যমে ভক্তদের দেখানো হয়েছে। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে মুক্তি পেতেই এবছর ধুমধাম করে বজরঙবলীর পুজোর অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে ।”

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।