স্টাফ রিপোর্টার, খড়গপুর: করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হলেন খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালের সুপার ডাঃ কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায়। এই মুহূর্তে তিনি হোম আইসোলেশনে রয়েছেন। জেলায় এই প্রথম কোনও হাসপাতালের সুপার করোনায় আক্রান্ত হলেন। ফলে উদ্বিগ্ন স্বাস্থ্য দফতর।

জানা গিয়েছে, গত দুদিন ধরেই সামান্য অস্বস্তি অনুভব করেছিলেন সুপার। ঠান্ডা লাগার একটা অনুভব ছিল সঙ্গে সামান্য গলা ব্যথা কিন্তু তারই মধ্যে কাজ করে যাচ্ছিলেন তিনি। তারই মধ্যে মঙ্গলবার নিজের নমুনা পাঠান আরটি/পিসিআর পরীক্ষার জন্য। বুধবার মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের ভাইরোলজি ল্যাবে সেই নমুনা পরীক্ষার পরই জানা যায় পজিটিভ হয়েছেন তিনি।

বুধবার সন্ধ্যায় সুপার নিজেই জানান তিনি কোভিড পজিটিভ।তাঁর স্বাস্থ্যের নিয়মিত খোঁজ রাখা হচ্ছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে। এর আগে খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালের করোনায় আক্রান্ত হন হাসপাতালের হেঁশেলের এক ঠিকাদার কর্মী। ১৯ বছরের এই হেঁশেল কর্মীর করোনা পজিটিভ ধরা পড়ার পরই হাসপাতালের কিচেন বন্ধ করে দেওয়া হয়।

গত কয়েকদিন আগে আক্রান্ত হয়েছিলেন সহকারী সুপার। এরপর সুপার ডাঃ কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায় আক্রান্ত হওয়ায় খড়গপুর হাসপাতালের নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মীরা উদ্বিগ্ন। সুপার আক্রান্ত হওয়ায় তাঁর সংস্পর্শে আসা মানুষজনের তালিকা তৈরি করছে জেলা স্বাস্থ্য দফতর।

বুধবার প্রকাশিত তালিকা অনুসারে সুপার সহ খড়গপুরে করোনা আক্রান্ত হলেন ২২ জন। এদিকে জানা গিয়েছে, খড়গপুর শহরের পুরাতন বাজারে একই পরিবারের বাবা, মা ও মেয়ে (বয়স ৬২, ৫২, ২৫) আক্রান্ত হয়েছেন।

অন্যদিকে খরিদাতে আক্রান্ত হয়েছেন স্বামী-স্ত্রী যাঁদের বয়স ৫৬ এবং ৫৩ বছর। তালবাগিচা ও সাউথ সাইডে যথাক্রমে ৫৪ ও ৫০ বছরের দুই প্রৌঢ় আক্রান্ত হয়েছেন। মালঞ্চ ও ভবানীপুরে ৩৫ ও ৪১ বছরের দুই ব্যক্তি আক্রান্ত হয়েছেন । রেল আবাসন ও হিজলী কো-অপারেটিভ সোসাইটি এলাকায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৮ ও ৫৭ বছর বয়সী দুই ব্যক্তি অন্যদিকে সিআর নগরে আক্রান্ত হয়েছেন ২৮ বছরের যুবক।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।