ওয়াংখেড়ের সচিন তেন্ডুলকর স্ট্যান্ড৷

মুম্বইতে সচিনের দু’শোতম টেস্ট৷ ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামের আসন সংখ্যা ৩৩ হাজার৷ তার মধ্যে শুধু পাঁচ হাজার টিকিটই সাধারণ দর্শকদের জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে৷ টিকিটের এই হাহাকারের মধ্যে এমসিএ-র এই পদক্ষেপে রীতিমতো এখন অসন্তোষ প্রকাশ করছে মুম্বইবাসী৷ মুম্বই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের কোষাধ্যক্ষ বিনোদ দেশপাণ্ডে জানাচ্ছেন, ‘ বেশীরভাগ টিকিটই এমসিএ-র সদস্যদের জন্য৷ পাঁচ হাজার টিকিটই শুধুমাত্র সাধারণ মানুষের জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে৷ তার মধ্যে ১০ হাজার টাকা দামের দেড় হাজার স্পেশ্যাল টিকিটও রয়েছে৷’ ইডেনের মতোই ওয়াংখেড়েতেও শুধুমাত্র সিজন টিকিটই থাকছে৷ থাকছে না ডেইলি টিকিট৷ এর ফলে টিকিটের চাহিদা মেটাতে যে সমস্যায় পড়তে হবে, সে কথা মেনেও নিচ্ছে এমসিএ কর্তৃপক্ষও৷ বিনোদ দেশপাণ্ডে আরও জানান, ‘ ১০ হাজার টাকা দামের স্পেশ্যাল টিকিট ছাড়া, ৫০০, ১০০০ এবং ২৫০০ টাকা দামের সাড়ে তিন হাজার টিকিট রয়েছে আমাদের কাছে৷ ইস্ট স্ট্যান্ডের লোয়ার টিকিটের দাম দিন প্রতি ৫০০ টাকা (২৫০০টাকা)৷ এছাড়া নর্থ স্ট্যান্ডেও ২৫০০ টাকা দামের টিকিট বিক্রি হবে সাধারণ মানুষের জন্য৷’ টেস্টের স্পেশ্যাল টিকিট গুলি আদতে সচিন তেন্ডুলকর স্ট্যান্ডের জন্য৷ যেখানে টেস্ট চলাকালীন খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থাও করা হয়েছে মানুষদের জন্য৷ সেই সমস্ত টিকিটগুলি কাউন্টার ছাড়াও অনুরোধের ভিত্তিতে বন্টন করা হবে বলে জানিয়েছে এমসিএ কর্তৃপক্ষ৷ তবে টিকিটগুলি বক্স অফিসে না অনলাইনের মাধ্যমে বিক্রি করা হবে, সে বিষয়ে এখনও কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি এমসিএ৷