স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এমপিএস কর্তার মেয়ের বিয়েতে গিয়েছিলেন বলে স্বীকার করে নিলেন বামফ্ণ্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু। তবে এমপিএসের লোক ঠকানোর কথা তিনি জানতেন না বলেই দাবি করেন বিমানবাবু।  পাশাপাশি এ কথাও জানাতে ভোলেননি, চিট ফাণ্ড কাণ্ডে দলের কেউ জড়িয়ে থাকলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতিমধ্যেই সারদা কাণ্ডে দলের নেতা রবীন দেবকে সিবিআই তলব করায় অস্বস্তিতে বামেরা। সোমবার এক সাংবাদিক বৈঠকে বামফ্রণ্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু বলেন, পুজোর পরই চিট ফাণ্ডের বিরুদ্ধে বড়সড় আন্দোলন শুরু করবে বাম দলগুলি। এছাড়াও অক্টোবরের শেষে সব বামদলগুলিকে নিয়ে কনভেনশনের ডাকও দিলেন তিনি।

এমপিএস কর্তা প্রমথনাথ মান্নার সঙ্গে তাঁর ছবি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হতেই অস্বস্তিতে রাজ্য বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসু। গতকালও তিনি দাবি করেন, এমপিএস কর্তা চিটফান্ড করেন বলে জানতেন না তিনি। গত শুক্রবার এমপিএসের আমানতকারীরা বিমান বসুর সঙ্গে প্রমথনাথ মান্নার ছবির পেপার কাটিং তুলে ধরার পরই এ নিয়ে শোরগোল পড়েছে। এই প্রেক্ষাপটে বিমানবাবু স্বীকার করে নেন, তিনি এমপিএস-এর কর্ণধারের মেয়ের বিয়েতে গিয়েছিলেন ঠিকই, কিন্তু, বাজার থেকে ওই সংস্থার টাকা তোলার ব্যবসা সম্পর্কে কিছুই জানতেন না।

===========================================================================

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।