স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: করোনা আবহের মধ্যেই শ্রমিক বিক্ষোভে ফের উত্তাল হল বাঁকুড়ার ট্রান্স দামোদর কোলিয়ারী। বাস্তুহারা, জমিহারা শ্রমিকদের অভিযোগ, তাদের এক প্রকার বঞ্চিত করেই এই কোলিয়ারী ফের নতুন করে শুরু করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। দীর্ঘ ৫ বছর ২ মাস তাঁরা যখন বেতন পাননি তখন শাসক দলের একাংশের নেতা ও পুলিশ প্রশাসনের মদতে এই কাজ হচ্ছে বলে তাঁদের অভিযোগ।

সোমবার কোলিয়ারীর কর্তৃপক্ষের আধিকারিকরা শ্রমিকদের বাধার মুখে পড়ে ফিরে যান। মঙ্গলবার পুলিশের সাহায্য নিয়ে তাঁরা ফের কোলিয়ারী এলাকায় পৌঁছন। শ্রমিকদের একাংশের অভিযোগের ভিত্তিতে এদিন বড়জোড়া ব্লক অফিসে সব পক্ষের প্রতিনিধিদের নিয়ে আলোচনায় বসেছে প্রশাসন। আন্দোলনকারীদের পাশে দাঁড়িয়েছে বিজেপি।

দলের বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ বলেন, প্রথম থেকে আমি এই বিষয়ের সঙ্গে আছি। সবাই বেতন পেলেও জমি হারা, বাস্তুহারা শ্রমিকরা কেন বেতন পাবেননা প্রশ্ন তুলে বলেন, যেই মালিক আসুক জমিদাতাদের ক্ষতিপূরণের পাশাপাশি বকেয়া বেতন দিতে হবে।

একই সঙ্গে তৃণমূল যুব সভাপতি ও সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম না করে তিনি বলেন, এখান থেকে ‘ভাইপো’র কাছে টাকা পাঠানো তারা কোনভাবেই বরদাস্ত করবেন না।

তৃণমূল নেতা সুখেন বিদ পাঁচ বছর এই কোলিয়ারী বন্ধ থাকার সময় কালে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৫৩৩ জন কর্মীকে বেতন দিয়েছেন। কোলিয়ারী ফের চালুর মুখে বিজেপি বাধা দিচ্ছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, ভিত্তিহীন ইস্যু নিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করে। মানুষ এখন সব বুঝতে পারছেন। তাই মানুষ কোলিয়রীর গেটে গিয়ে তা চালুর দাবী করছেন বলে জানান। একই সঙ্গে যারা বেতন পাননি বলে অভিযোগ করছেন তারা সবাই বহিরাগত ও বিজেপির সঙ্গে যুক্ত বলে তিনি দাবী করেন।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প