লক্ষ্মীর শততম রঞ্জি ম্যাচে তাঁকে সংবর্ধনা দিলেন সিএবি কোষাধ্যক্ষ বিশ্বরূপ দে৷ কানপুরে ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ তৃতীয় ওয়ান ডে-র ম্যাচ অবজারভার ছিলেন বিশ্বরূপবাবু৷ সেখান থেকে বৃহস্পতিবার সরাসরি দিল্লিতে এসে বাংলা অধিনায়ককে সংবর্ধনা দিলেন তিনি৷

বাংলা    ২৪২/৩

মধ্যপ্রদেশের বিরুদ্ধে গত ম্যাচে এমরসুমের প্রথম তিন পয়েন্ট পেয়ে নিজেদের আত্মবিশ্বাস কিছুটা ফিরে পেয়েছিল সার্ভিসেস দলটি৷ কিন্তু বৃহস্পতিবার ঘরের মাঠে বাংলার বিরুদ্ধে ম্যাচের প্রথম দিনের শেষে বিশেষ কোনও উন্নতি চোখে পড়ল না আর্মি দলটির৷ ইডেনে রান পাননি, কিন্তু দিল্লির পালাম এয়ারফোর্স গ্রাউন্ডে এদিন বাংলার সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যান ওপেনার অরিন্দম দাস৷ তাঁর অপরাজিত ১৩৯ রানের দৌলতে প্রথম দিনেই ম্যাচ থেকে পয়েন্ট পাওয়ার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন লক্ষ্মীরা৷
সৌরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ইডেনে ছয় পয়েন্ট পাওয়ার সুবর্ণ সুযোগ থাকলেও, তা পায়নি বাংলা৷ সার্ভিসেসের বিরুদ্ধে তাই লক্ষ্মীরা পুরো পয়েন্টের জন্য প্রথম দিন থেকেই ঝাঁপাবেন, সে বিষয়টি বুধবারই পরিষ্কার করে দিয়েছিলেন বাংলার কোচ অশোক মালহোত্রা৷ এদিন টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে বাংলার হয়ে শুরুটা নিখুঁত করেন দুই ওপেনার অরিন্দম দাস এবং রোহন বন্দ্যোপাধ্যায় (৪২) ৷ দুর্ভাগ্যবশতভাবে রোহন রান আউট হয়ে গেলেও, দলের ইনিংসকে টেনে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব নেন অরিন্দম৷ এদিন সেঞ্চুরি করার পথে তিনি মেরেছেন ১১টি চার এবং একটি ছক্কা৷ অরিন্দম রান পেলেও, দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে ব্যাট হাতে বিশেষ সুবিধা করতে পারলেন না উইকেটরক্ষক ঋদ্ধিমান সাহা৷ ২১ রান করে ইরফান খানের বলে এলবিডব্লিউ হন তিনি৷ দিনের শেষে বাংলার সংগ্রহ ৩ উইকেট হারিয়ে ২৪২ রান৷ ইডেনে সবুজ পিচে পেসারদের প্রাধান্য দেওয়া হলেও, এখানে প্রত্যাশামতোই দুই স্পিনার খেলাচ্ছে বাংলা৷ সৌরভ সরকারের জায়গায় দলে এসেছেন বাঁ-হাতি স্পিনার ইরেশ সাক্সেনা৷